শ্রীলঙ্কায় হোয়াইটওয়াশ উইন্ডিজ

স্পোর্টস ডেস্ক: শ্রীলঙ্কা তাদের ওয়ানডে ইতিহাসে দ্বিতীয়বার ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হোয়াইটওয়াশ করলো। অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজের জাদুতে তৃতীয় ও শেষ ম্যাচ তারা সফরকারীদের হারিয়েছে ৬ রানে। তাতে ২০১৫ সালের পর আবারও ক্যারিবিয়ানদের বিপক্ষে সিরিজের সবগুলো ম্যাচ জিতলো লঙ্কানরা।

টপ অর্ডারের ব্যাটিং নৈপুণ্যে টসজয়ী শ্রীলঙ্কা ৩০৭ রানের বড় স্কোর গড়ে অলআউট হয় শেষ বলে। পাল্টা জবাব দেয় ক্যারিবিয়ান টপ অর্ডার। তিন হাফসেঞ্চুরিতে হোয়াইটওয়াশ এড়ানোর সম্ভাবনা জাগায় তারা। কিন্তু ডানহাতি পেসার ম্যাথুজ ডেথ ওভারে বল হাতে নিয়ে জাদু দেখান। ৯ উইকেটে ৩০১ রানে থামে সফরকারীরা।

প্রথম চার ব্যাটসম্যানের মধ্যে হাফসেঞ্চুরি থেকে কয়েক রান দূরে থাকতে আউট হয়েছেন। অধিনায়ক দিমুথ করুণারত্নে ও কুশল পেরেরা দুজনেই করেন ৪৪ রান। আবিষ্কা ফার্নান্ডোর সঙ্গে (২৯) ওপেনিং জুটিতে ৬০ রান করে অবদান রাখেন করুণারত্নে। আর ইনিংস সেরা ৮৯ রানের জুটিতে ভূমিকা দুই কুশলের। অবশ্য কুশল মেন্ডিস হাফসেঞ্চুরি করতে পারলেও ব্যর্থ হন পেরেরা।

কুশল মেন্ডিস ইনিংস সেরা ৫৫ রান করেন ৪৮ বলে ৬ চার ও ১ ছয়ে। থিসারা পেরেরা ও ধনঞ্জয়া ডি সিলভার ৬৪ রানের জুটিতে ৩০০ স্কোরের পথে ছুটতে থাকে শ্রীলঙ্কা। অবশ্য সেটা অতিক্রমের আগেই বিদায় নেন দুজনই। ৫১ রানে আউট হন ধনঞ্জয়া, থিসারা থামেন ৩৮ রানে। দুই ব্যাটসম্যানই আলঝারি জোসেফের শিকার।

ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গার ৯ বলে ১৬ রানের কল্যাণে শ্রীলঙ্কার দলীয় স্কোর তিনশ ছাড়ায়। জোসেফ ৪ উইকেট নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সফল বোলার। ‍দুটি পান জেসন হোল্ডার।

বড় লক্ষ্যে নেমে দুর্দান্ত শুরু করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। প্রথম চার ব্যাটসম্যানই ফিফটি পেতে পারতেন। কিন্তু হয়নি কিয়েরন পোলার্ডের। ৪৬তম ওভারে দলীয় ২৫৩ রানে তাকে বিদায় করে ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ। ৫০ বলে ৬ চার ও ১ ছয়ে ৪৯ রান করে লঙ্কানদের পঞ্চম শিকার হন পোলার্ড। শেষ তিন ওভারে জাদু দেখান লঙ্কান অলরাউন্ডার। পরের ওভারে হোল্ডারকেও (৮) ফেরান।

হোল্ডার আউট হওয়ার ২ বল পরই ম্যাথুজের শিকার হতে পারতেন ফ্যাবিয়ান অ্যালেন। কিন্তু পেরেরা ক্যাচ ছেড়ে দেন। তাতে শেষ ২ ওভারে ২৩ রান দরকার ছিল উইন্ডিজের, হাতে ছিল ৪ উইকেট। ‍তৃতীয় বলে অ্যালেনের ছক্কা চাপ কমালেও আগে-পরের দুই বলে রান আউট হন হেইডেন ওয়ালশ ও রোস্টন চেজ।

শেষ ওভারে শ্রীলঙ্কার দরকার ছিল ২ উইকেট, আর উইন্ডিজের ১৩ রান। ম্যাথুজের প্রথম বলে চার মেরে পরেরটি ছক্কার চেষ্টা করেছিলেন অ্যালেন। কিন্তু ডিপ মিডউইকেটে মেন্ডিসের ক্যাচ হন, মাত্র ১৫ বলে ২ চার ও ৩ ছয়ে ৩৭ রান করেন তিনি। শেলডন কট্রেল ও জোসেফ শেষ জুটিতে সুবিধা করতে পারেননি। শ্রীলঙ্কা সিরিজ জেতে ৩-০ তে।

এর আগে সুনীল আমব্রিস ও শাই হোপের ১১১ রানের উদ্বোধনী জুটি উইন্ডিজের আশা জাগায়। পরে হোপের সঙ্গে নিকোলাস পুরানের ৬০ রানের দ্বিতীয় জুটিই ছিল সর্বোচ্চ। হোপ সর্বোচ্চ ৭২ রান করেন। আরেক ওপেনার আমব্রিসের ব্যাটে আসে ৬০ রান। তিন নম্বরে নামা পুরান আউট হন ৫০ রান করে।

১০ ওভারে ৫৯ রান দিয়ে ৪ উইকেট নিয়ে শ্রীলঙ্কার সেরা বোলার ম্যাথুজ।

ইউএস/স্পোর্টস/আরএন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *