এক বুক কষ্ট নিয়ে না ফেরার দেশে চলে গেলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা সাদেক হোসেন খোকা ।

ইউরো সমাচার, নিউজ ডেস্কঃ বিএনপি নেতা ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুকে আফসোস করে বলছিলেন সদ্য প্রয়াত সাদেক হোসেন খোকা।”চলে যাচ্ছি, ডাক্তার জবাব দিয়েছে। কষ্ট একটা বুকে… মৃত্যুকে জয় করে যে দেশ স্বাধীন করলাম, আজ সেই দেশের মাটিতে আমার মৃত্যু হলোনা ” 
আজ বাংলাদেশ সময় দুপুর ১: ১৫ মিনিটে সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকা ইন্তেকাল করেন( ইন্না লিল্লাহে ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজেউন।)     
 একজন মুক্তিযোদ্ধার জীবনের শেষ ইচ্ছাটাও পূরণ হয়নি! পাসপোর্ট প্রদান না করে তাকে দেশে আসতে দেয়া হয়নি। 
                                                                                                                                   সাদেক হোসেন খোকা। বিএনপির কেন্দ্রীয় ও ঢাকা মহানগরের শক্তিমান নেতা। সাবেক মন্ত্রী। অবিভক্ত ঢাকার সাবেক মেয়র। এতোসব পরিচয় ছাপিয়ে খোকা খ্যাতিমান ছিলেন একজন মুক্তিযোদ্ধা, একজন গেরিলা মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে। মুক্তিযুদ্ধ আর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি তার ভালোবাসা ছিল জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত।বাংলাদেশের জন্মযুদ্ধের অকুতোভয় বীর মুক্তিযোদ্ধা  বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকা ছিলেন অবিভক্ত ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের শেষ নির্বাচিত সফল মেয়র।
এপ্রিল ২৫, ২০০২ ইং অবিভক্ত ঢাকা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র নির্বাচিত হন সাদেক হোসেন খোকা। নভেম্বর ২৯, ২০১১ ইং সাল পর্যন্ত টানা ১০ বছর বিএনপি ও আওয়ামী লীগের শাসনামলে ঢাকা মহানগরের মেয়র ছিলেন তিনি। মেয়র থাকাকালে মুক্তিযোদ্ধাদের নামে ঢাকার বিভিন্ন সড়কের নামকরণ করেছিলেন তিনি। মুক্তিযোদ্ধারা কে কোন দল করে তা তিনি দেখেন নি। একজন মুক্তিযোদ্ধার কাছে মুক্তিযোদ্ধা পরিচয়টাই সবচেয়ে সম্মানের। রাশেদ খান মেমন কাল বলছিলেন, ঢাকায় তার নামেও একটা সড়ক করেছিলেন খোকা । মেনন বলছিলেন, ভিন্ন মতাদর্শের রাজনীতির কারণে খোকা চাইলেই সেটা না করতে পারতেন কিন্তু তিনি তা করেছেন, প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মান দিয়েছেন, রাজনৈতিক পরিচয়ের উর্ধ্বে গিয়ে। যদিও রাষ্ট্র আজ প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের প্রাপ্য সম্মান দিতে ব্যার্থ। রাষ্ট্র আজ জীবিত থাকাকালীন মুক্তিযোদ্ধার শেষ ইচ্ছেটুকু দেশে ফেরার আর্তনাদ শুনতে ব্যার্থ।
বিএনপি নেতা এবং বীর মুক্তিযোদ্ধা সাদেক হোসেন খোকার মৃত্যুতে গভীর শোক জানিয়ে এক বিবৃতি দিয়েছেন অষ্ট্রিয়া বিএনপির সিনিয়র নেতা নেয়ামুল বশির, হানিফ ভুইয়া, এহছানুল্লাহ আলমগীর, মোঃ মোস্তফা, রেজাউর রহমান পলাশ প্রমুখ। তারা মরহুমের রুহের মাগফেরাত কামনা করেন এবং শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।  
এদিকে ভিয়েনা থেকে প্রকাশিত ইউরো সমাচার পত্রিকার চীফ এডিটর আবিদ হোসেন খান তপন , সম্পাদক মাহবুবুর রহমান এবং সহ- সম্পাদক আনিছুজ্জামান  বীর মুক্তিযোদ্ধা সাদেক হোসেন খোকার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেন এবং শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।   

Leave a Reply

Your email address will not be published.