বাংলাদেশে প্রাথমিক ছাড়া সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলছে ২২ ফেব্রুয়ারী

আগামী ২২ ফেব্রুয়ারী মঙ্গলবার থেকে মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক ও বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে শ্রেণিকক্ষে পাঠাদান শুরু হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি

 বাংলাদেশ ডেস্ক থেকে কবির আহমেদঃ বৃহস্পতিবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান শিক্ষামন্ত্রী ডা.দীপু মনি।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, প্রাথমিক বিদ্যালয় ছাড়া ২২ ফেব্রুয়ারি (মঙ্গলবার) থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। যারা করোনার দুই ডোজ নিয়েছেন তারাই ক্লাসে অংশ নিতে পারবে। এ সময় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে ২২ ফেব্রুয়ারির পর আরও ১০ থেকে ১৪ দিন সময় নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

মন্ত্রী বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়গুলো তাদের পাঠদানের সময়সূচি ঠিক করে নেবে। তবে ২২ তারিখ থেকেই শ্রেণিকক্ষে ক্লাস চালু করতে পারবে। শিক্ষার্থীদের মধ্যে যারা টিকা নেননি তাদের টিকা নিয়ে নেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

প্রাথমিকে ক্লাস শুরুর বিষয়ে দীপু মনি বলেন, করোনা নিয়ন্ত্রণে গঠিত জাতীয় পরামর্শক কমিটি মনে করে ২২ তারিখের পর করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়া শুরু করবে। পরবর্তী ১৫ দিনের মধ্যে প্রাথমিকেও ক্লাস শুরুর মতো পরিবেশ সৃষ্টি হবে। এখনও যে অবস্থা আছে তাতে প্রাথমিকের শিক্ষার্থীদের শ্রেণিকক্ষে পাঠদানে নিয়ে আসছি না। আমরা আরেকটু অপেক্ষা করছি। কারণ তাদের তো টিকা দেওয়া হয়নি। আমরা সপ্তাহ দুয়েক সর্বোচ্চ দেখব। আমরা আশা করছি সপ্তাহ দুয়েক পর সংক্রমণ কমে আসবে এবং আমরা তাদেরকে শ্রেণিকক্ষে নিয়ে আসতে পারব।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, প্রাথমিকে অর্থাৎ ১২ বছরের নিচে যারা তাদের টিকাদানের ব্যাপারেও একটা উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বিষয়গুলো দেখছে। শিক্ষামন্ত্রণালয় প্রস্তুতি নিয়ে রাখছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের প্রস্তুতি নেওয়ার পর ১২ বছরের নিচের শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া হবে।

করোনা সংক্রমণ রোধে গত ২১ জানুয়ারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধসহ নতুন করে পাঁচ দফা নির্দেশনা দেয় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। তাতে গত ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়। তবে এরপর আরও দুই সপ্তাহ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। অবশেষে আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে শিক্ষামন্ত্রণালয়।

ইতিপূর্বে বাংলাদেশের জাতীয় সংবাদ মাধ্যম জানিয়েছেন,প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস সংক্রমণ কিছুটা স্বাভাবিক হয়ে আসায় মাধ্যমিক ও বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছে সরকারের কোভিড-১৯ বিষয়ক জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটি। বুধবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) রাত ১০টার দিকে অনুষ্ঠিত ভার্চুয়াল বৈঠকে শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে এই পরামর্শ দেয় কমিটি।

জাতীয় কারিগরি কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ সহিদুল্লা বলেন, যেহেতু এখন করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতির অনেক উন্নতি হয়েছে, স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে মেনে ও সকল শিক্ষার্থী দুই ডোজ টিকা নিয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার ব্যাপারে বিবেচনা করা যেতে পারে।

 14,853 total views,  1 views today