কখন চালু হবে ভোলার ২৫০ শয্যার হাসপাতাল ?

ভোলা থেকে ব্যুরো চীফ রিপন শানঃ ভোলার ২৫০ শয্যার হাসপাতালের নির্মাণ কাজ শেষ হলেও চালু হয়নি এই হাসপাতাল । দ্বীপজেলা ভোলায় ২০ লক্ষাধিক মানুষের বাস। অথচ ৬ মাস পূর্বে নির্মাণ কাজ শেষ হলেও চালু করতে পারেনি স্বাস্থ্য বিভাগ ।

ভোলা শহরে একটি মাত্র হাসপাতাল । বিগত ২০০০সালে হাসপাতাল টি ৫০ শয্যা থেকে ১০০ শয্যায় উন্নীত করা হয়েছিল । এরপর ভোলা জেলার জনগনের সুচিকিৎসার জন্য সাবেক বাণিজ্য মন্ত্রী এবং বর্তমান এম পি তোফায়েল আহমেদ এই হাসপাতালটিকে ২৫০ শয্যায় উন্নীত করেন । প্রায় ৪৫ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করা হয় অত্যাধুনিক সুবিধা সংবলিত সাত তলা ভবন।                                

গত বছরের জুলাইয়ে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান নবনির্মিত ভবনটি হস্তান্তর করে স্বাস্থ্য বিভাগকে। কথা ছিল অক্টোবরের মধ্যেই চালুর। দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্যি যে, জনবল ও আসবাবপত্রের অভাবে আজও চালু করা সম্ভব হয়নি।                                             

স্থানীয় জনগন জানান, দ্বীপজেলায় কেউ গুরুতর  অসুস্থ হলে বরিশাল কিংবা ঢাকা নিতে হয়। দ্রুত ঢাকা বা বরিশাল নিতে ব্যর্থ হলে কেউ কেউ পথেই মারা যান । জনগনের দাবী কাল বিলম্ব না করে হাসপাতালটি চালু করার । হাসপাতালটি  চালু হলে উপকৃত হবে ভোলার ২০ লাখ জনগন ।

অন্যদিকে রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে ভবনের বিভিন্ন স্থানে শেওলা পড়ার পাশাপাশি নষ্ট হচ্ছে দরজা-জানালা। হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. সিরাজ উদ্দিন জানান, নতুন ভবনে সাময়িকভাবে করোনা ইউনিটের ব্যবস্থা করা হয়েছে। ১০০ টি  অক্সিজেন সিলিন্ডারের অর্ডার দেওয়া হয়েছে। সিভিল সার্জন ডা. রতন কুমার ঢালী জানান, নতুন ২৫০ শয্যার হাসপাতালের জন্য জনবল নিয়োগের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন। অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে ছাড়পত্র পেলে দ্রুত হাসপাতালের কার্যক্রম শুরু করা সম্ভব হবে।                                                                                                                                              জেলা প্রশাসক মাসুদ আলম সিদ্দিক জানান, নতুন ভবনে সেন্ট্রাল অক্সিজেনের লাইন দেওয়া আছে। করোনা রোগীদের অক্সিজেন প্রয়োজন হলে তা ব্যবহারের ব্যবস্থা করা হবে।

 4,965 total views,  1 views today