ঝালকাঠিতে ভারিবর্ষনে জন জীবন বিপর্যস্ত

 ঝালকাঠি থেকে নিজস্ব প্রতিনিধি,বাধন রায়ঃ আজ ২৭ মে বুধবার  ঝালকাঠিতে উত্তর বঙ্গোপসাগর  এলাকায় বায়ুচাপের তারতম্যের আধিক্য বিরাজ করছে। এর প্রভাবে উপকূলীয় জেলা ঝালকাঠিতে সকাল ৮টা থেকে সাড়ে ১১টা পর্যন্ত ভারী বৃষ্টিপাত হয়েছে। ঘূর্ণিঝড়  আম্ফানে প্রভাবে পানি বৃদ্ধির ফলে গ্রামাঞ্চল তলিয়ে ছিল এবং পানি নেমে যাওয়ার মধ্যেই এই বৃষ্টিপাত গ্রামোঞ্চলে পানি বন্ধি করে ফেলে মানুষদের।                                                                     

গ্রামাঞ্চলে ছোট ছোট খাল ভরাট করে বাড়ি ঘরের রাস্তা এবং উন্নয়ন কর্মকান্ডে পানি নিস্কাসনের ব্যবস্থা না রেখে অপরিকল্পিতভাবে উন্নয়ন কার্যক্রম করার ফলে পানি দ্রুত নামতে না পেরে পানিবন্ধীর শিকার হচ্ছে গ্রামবাসী। শহর এলাকায়ও টানা বৃষ্টিপাতের ফলে শহরে ড্রেনগুলো ভরাট থাকায় পানি দ্রুত নামতে না পেরে দোকানপাট এবং নিচু এলাকার বসতবাড়ি কয়েক ঘন্টা পানিতে ডুবে ছিল। তিন ঘন্টা যাবৎ বিদুৎ ছিল না। ।

এদিকে ঝালকাঠি জেলায় ঈদের দিনে করোনায়  আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু,জেলায় ৪১ আক্রান্ত হয়েছে । আক্রান্তদের মধ্যে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা কালীন ১২ সুস্থ্য হয়েছে। সর্বশেষ আক্রান্তদের মধ্যে নলছিটি উপজেলার মৎস্য অফিসার রমনী মিস্ত্রী,তেতুল বাড়িয়া গ্রামের মোঃ ইমরান, ঝালকাঠি রাজাপুর উপজেলা প্রকৌশলী গোলাম মোস্তফা,সদর উপজেলার খাগুটিয়া গ্রামের মোঃ রোমান ও একই গ্রামের মোঃ ইমরান করোন ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। ইতোপূর্বে ঈদের দিন কাঠালিয়া উপজেলার সোনাউঠা গ্রামের টুম্পা(১৮) করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে।

 

ঝালকাঠি জেলায় বুধবার পর্যন্ত ৮৩৫ জনের নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানে হয়েছে এবং ৭৭৫জনের রিপোর্ট এসেছে। এদের মধ্যে ৪১ জনের রিপোর্ট পজেটিভ ও ৭৩৪ জনের নেগেটিভ রিপোর্ট এসেছে। অপেক্ষমান রয়েছে ৬০ জনের রিপোর্ট। জেলায় শুক্রবার পর্যন্ত ১১৮ জন হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে। এ পর্যন্ত ১১০৯ জন হোম কোয়ারেন্টাইনে ছিল। তাদের মধ্যে ৯৯১ জন ছাড়পত্র নিয়ে চলে গেছে। ঝালকাঠির সিভিল সার্জন ডা: শ্যামল কৃষ্ণ হাওলাদার এ তথ্য জানিয়েছেন।

 5,422 total views,  1 views today