ঝালকাঠিতে অসহায় নারী মুচিকে দোকান দিলেন যুবলীগ নেতা

 বাধন রায় ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ কিছুদিন আগেও ঝালকাঠি সদর উপজেলার বাউকাঠি বাজারের ফুটপাতে জুতা সেলাই করে সংসার চালাত সবিতা রানী দাস। রোদে পুড়ে বৃষ্টিতে ভিজে চলতো তঁার নিত্য দিনের কাজ। নারী মুচির এ দুর্দশার কথা শুনে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে এগিয়ে এলেন ঝালকাঠি পৌর যুবলীগের যুগ্মআহ্বায়ক বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ছবির হোসেন। তিনি নিজস্ব অর্থ ব্যয়ে দেড় লাখ টাকায় সবিতাকে দোকান ঘর, সাজসরঞ্জাম ও মালামাল কিনে দিয়েছেন।                                                                                                           

আজ ৫ আগস্ট বুধবার আনুষ্ঠানিকভাবে সাবিতার কাছে দোকানটি হস্তান্তর করা হয়। ফলে পিতা মুত্যর ১২ বছর পর অবসান হলো সবিতার ফুটপাতের জীবন। কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে সবিতা বলেন, আমি যেভাবে কষ্ট করে জীবন যাপন করেছি, আর কোন নারীর যেন এমনটি না হয়। আমি একজন সফল ব্যবসায়ী হতে চাই। আমাকে আজকে ছবির ভাই সহযোগিতা করেছেন, আমিও চেষ্টা করবো একদিন অসহায় মানুষের পাশে দাড়াতে।                            

ব্যবসায়ী ছবির  হোসেন বলেন, আমার বন্ধু পলাশ রায়ের মাধ্যমে খবর পেয়ে সবিতাকে একদিন দেখতে আসি। সে দুপুরে খাবার খাওয়ার টাকাও রোজগার করতে পারেনি দেখে খুবই কষ্ট পেলাম। নিজের বিবেকের তাড়নায় সবিতাকে একটি দোকান ঘর কিনে তাতে মালামাল কিনে দিয়েছি। এখন নিশ্চিন্তে সে ব্যবসা করে রোজগার করতে পারবে।

 5,818 total views,  1 views today