চলমান শুদ্ধি অভিযানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পাশে থাকার আহবান জানিয়েছেন অস্ট্রিয়া আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম কবির।

নিউজ ডেস্কঃ অনুপ্রবেশকারী, কাউয়া, হাইব্রিড, উফসী, সুবিধাবাদী এবং দুর্নীতিবাজমুক্ত বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ অর্থাৎ বঙ্গবন্ধুর আওয়ামী লীগ গড়ার মহৎ লক্ষ্য সামনে রেখে- বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশব্যাপী যে শুদ্ধি অভিযান চলছে ; তাকে স্বাগতম জানিয়েছেন এবং সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের দলীয় সভানেত্রীর পাশে থাকার আকুল আহ্বান জানিয়েছেন- অস্ট্রিয়া আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক, ভোলার লালমোহনের কৃতিসন্তান, মুজিবাদর্শের অকুতোভয় সমাজকর্মী সাইফুল ইসলাম কবির, এক  বার্তায় তিনি লেখেন-

” বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা এ নিয়ে চার বার অনেক ঘাত প্রতিঘাত মোকাবিলা করে রাষ্ট্রের ও দলের হাল ধরেছেন। বঙ্গবন্ধু যে স্বপ্ন দেখতেন তিনিও একই স্বপ্ন লালন করে চলেছেন। সমস্যা আমাদের অনেক। আমরা বাঙালিরা খুব সহজে পিছনের কথা বা ইতিহাস ভুলে যাই। কখনও কখনও বলেই ফেলি ভাই পেছনে তাকাবার সময় আছে নাকি ? আমার কাছে মনে হয় এটিই আমাদের বড়ো সমস্যা। আবার দলের স্বার্থে সব ভুলে আসুন একসাথে
কাজ করি। এই দুটো কথা যারা বলে তারাই হচ্ছে সবচেয়ে বিপদজনক লোক আমার কাছে মনে হয়। দলের বারোটা বাজাবার জন্য এই দুটি কথাই যথেষ্ট। কেননা ইতিহাসকে সে অস্বীকার করলো বলে মনে করি। হ্যা দলের স্বার্থ যদি থেকেই থাকে, তা অবশ্যই দেখব, কিন্তু সব ভুলে পদ পদবী দিয়ে রাজার আসনে বসিয়ে দিচ্ছেন বলেই আজ আওয়ামী লীগের নিবেদিত মানুষগুলোর চোখের জলে পুকুর ভরছে,  তার খবর আমরা কয়জন রাখি ? আজ দলের মধ্যে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের লোকদের কোন জায়গা নেই কেন ? তার বড়ো প্রমাণ আজকের আওয়ামী লীগ। দলে কাউয়া, রাজাকার, জামায়াত, বিএনপি, হাইব্রিড, গডফাদার ইত্যাদিতে সয়লাব। এটা আমার কথা নয় , দলের সভানেত্রী ও সাধারণ সম্পাদকের কথা। আমরাও এ কথার সাথে একমত। আজ সরকার ও দল ক্ষমতায় আছে বলে আমরা টের পাচ্ছি না। ক্ষমতা থেকে চলে গেলে বুজবো, কি পরিমাণ ক্ষতি হয়ে  গেছে আমাদের। দলে আওয়ামী লীগের তকমা ও লেবাসধারীদের চিহ্নিত করার সময় এসেছে। কোন লোকটা আগে কি ছিলো, এখন কোন অবস্থায় আছে তার চিত্র দেখলেই বুঝতে পারবেন, কতটা দুর্নীতি করেছে সে! কোন এমপি কোন কোন এলাকায় বিএনপি জামাত শিবিরের লোক ঢুকিয়ে মূল আওয়ামী লীগারদের তাড়িয়েছে ! আমি এমনও দেখি যারা ঠিক মত ভাত খেতে পারতো না তাদের আলী শান বাড়ি গাড়ি ! কোটি কোটি টাকার মালিক ! আমি বলিনা তার সংসারে আর্থিক স্বচ্ছলতা আসছে কেন ? আমি বলছি- রাতারাতি আলাদীনের চেরাগ আসলো কোথা থেকে ? অবাক করার বিষয় হলো মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দুর্নীতির বিরুদ্ধে যখন অভিযান শুরু করার পরিকল্পনা করলেন….।
হঠাৎ দেখলাম প্রেসক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলন করে জানিয়ে দেয়া হলো দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান আসছে। অতএব চোর তোমরা চুরির মাল সরাও। এটিও একটি চরম হতাশার কথা। অল্প কয়জন নেতা এমপি মন্ত্রী ছাড়া আর কাউকেই এ মহৎ কাজে সোচ্চার হতে দেখলাম না ! মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা এগিয়ে যান; দুর্দিনের আওয়ামীলীগ কর্মীরা আপনার পাশে আছে । পাশে থাকবে । জয় বাংলা । জয় বঙ্গবন্ধু। “

Leave a Reply

Your email address will not be published.