আগামীকাল অস্ট্রিয়ায় আরও ২১ টি জেলাকে লাল ঘোষণা কর হচ্ছে ! ভিয়েনা এখনও কমলা জোনে !

করোনায় আক্রান্ত হলেও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ হবে না।শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে করোনার দ্রুত অ্যান্টিজেন র‌্যাপিড টেস্টের সিদ্ধান্ত !

 অন লাইন ডেস্ক থেকে,কবির আহমেদঃ আজ অস্ট্রিয়ার বিভিন্ন গণমাধ্যম করোনা কমিশনের বিশ্বস্ত সূত্রের বরাত দিয়ে জানিয়েছেন, আজ সন্ধ্যায় ভিয়েনায় করোনা কমিশনের বৈঠক বসছে। আগামীকাল সকালে এক সাংবাদিক সম্মেলনে বৈঠকের বিস্তারিত জানানো হবে। বিশ্বস্ত সূত্রে বলা হয়েছে নিম্নে বর্ণিত ২১ জেলাকে করোনার লাল জোন ঘোষণার সুপারিশ করা হয়েছে। এর ফলে এখন অস্ট্রিয়ার ২৫ টি জেলা লাল জোন পড়লো। সম্ভাব্য লাল ঘোষণার অপেক্ষমান জেলা সমূহ সহ সকল লাল জেলা – Neusiedl am See, St.Pölten, Amstetten   Mödling, Bruck/Leitha, Tulln,Wels,Gmunden Grieskirchen,Ried im Innkreis,Rohrbach Schärding,Vöcklabruck,Hallein,Salzburg- Umgebung,St. Johann im Pongau,Zell am See Leoben, Voitsberg,Innsbruck-Land,Innsbruck Schwaz,Imst,Landeck, এবং Rheintal-Walgau. অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনায় সংক্রমণ বেশী হলেও লাখের গড় আনুপাতিক হারে সে এখনও কমলা জোনেই থাকছে।

আজ সকালে ভিয়েনায় এক সাংবাদিক সম্মেলনে অস্ট্রিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রী রুডল্ফ আনস্কোবার ও শিক্ষামন্ত্রী হাইঞ্জ ফ্যাসম্যান শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে করোনা সম্পর্কিত কিছু নতুন নিয়মের কথা জানান। প্রথমত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের কেহ করোনায় আক্রান্ত হলে প্রতিষ্ঠান বন্ধ করা হবে না। আগামী সপ্তাহের শরতের ছুটির পর অস্ট্রিয়ার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে করোনার এন্টিজেন Rapid test অর্থাৎ দ্রুত পরীক্ষা ও ফলাফলের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

সংবাদ সংস্থা এপিএ সরকারের উদ্ধৃতি দিয়ে জানায়, এটি শিক্ষা অধিদপ্তর, রাজ্য মেডিকেল ডিরেক্টরটি এবং শিক্ষা ও স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের মধ্যে একটি “নিবিড় সমন্বয় প্রক্রিয়ার” মাধ্যমে সমন্বয় করা হয়েছে। শিক্ষামন্ত্রী এবং স্বাস্থ্যমন্ত্রী এটিকে “শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সকোভিড -১৯ পদ্ধতি” শিরোনামে উপস্থাপন করেছেন।

এই প্রসঙ্গে স্বাস্থ্যমন্ত্রী রুডল্ফ আনস্কোবার বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে সাধারণ ধারণা দিয়েছেন: তিনি বলেন পরিস্থিতি “উদ্বেগজনক” কেবল অস্ট্রিয়ায় নয়, বিশ্বব্যাপী। তবে ক্রমবর্ধমান সংক্রমণের অব্যাহত বৃদ্ধির ফলে আমরা এর থেকে বাহির হতে এখনও অনেক দূরে রহিয়াছি। দুর্ভাগ্যক্রমে করোনা মহামারীটি পুনরায় সমগ্র ইউরোপে ছড়িয়ে পড়েছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, সংক্রমণ বৃদ্ধির ফলে আমাদের হাসপাতালে রোগীর সংখ্যা বাড়ছে তবে আইসিইউ বা নিবিড় পরিচর্যা ইউনিটগুলিতে এখনও পর্যন্ত তুলনামূলকভাবে অনেক খালি আছে।

অন্যদিকে শিক্ষামন্ত্রী হাইঞ্জ ফ্যাসম্যান বলেন, “স্কুলগুলি তুলনামূলকভাবে নিরাপদ জায়গা।” করোনার জন্য বর্তমানে সমগ্র অস্ট্রিয়ার মধ্যে মাত্র সাতটি স্কুল বন্ধ রয়েছে এবং অস্ট্রিয়ান স্কুল শিক্ষার্থীদের মধ্যে মাত্র ২১৪ জন করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন।

কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ এবং স্কুলগুলি বন্ধ করার জন্য বিভিন্ন মহলের চাপের বিরোধীতা করে শিক্ষামন্ত্রী বলেন,আপনাকে সঠিক ভারসাম্য খুঁজে বের করতে হবে এবং উদাহরণস্বরূপ যদি স্কুলগুলি দুই বা তিন সপ্তাহের জন্য বন্ধ করা হয় তাহলেও পরিস্থিতি স্বাভাবিক হচ্ছে না। তিনিস আরও বলেন পিতামাতার এক মতামত জরিপে দেখাগেছে প্রায় ৮০% অভিভাবকই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা রাখার পক্ষে মত দিয়েছেন।

শিক্ষামন্ত্রী সকলকে আশ্বস্ত করে আরও বলেন স্কুলে “অ্যান্টিজেন পরীক্ষাগুলি আসবে এবং তারা ভাইরাসের মোকাবেলায় অনেক পরিবর্তন আনবে।” দ্রুত পরীক্ষাগুলি তথাকথিত “সুপার স্প্রেডার” সনাক্ত করতে সহায়তা করবে। “যেখানে সংখ্যার সংক্রমণ খুব বেশি রয়েছে, যেখানে এক্সপোজার খুব বেশি সেখানে অ্যান্টিজেন পরীক্ষা খুব তথ্যমূলক,” স্বাস্থ্যমন্ত্রী আনস্কোবার নিশ্চিত করেছেন।

পরিশেষে শিক্ষামন্ত্রী হাইঞ্জ ফ্যাসম্যান বলেন, “এটি আমার প্রথম মহামারী, এবং আশা করি এটি আমার শেষ।” তিনি সকল শিক্ষক-শিক্ষিকা,অভিভাবক, শিক্ষার্থী এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের একসাথে একই পরিবারের মতোই সম্মিলিত ভাবে একসাথে থেকে সহযোগিতার জন্য ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

 

 10,379 total views,  1 views today