অস্ট্রিয়ার হাতে মাত্র ২ সপ্তাহ সময় আছে করোনার সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণের – স্বাস্থ্যমন্ত্রী

আজ অস্ট্রিয়ায় করোনায় আক্রান্ত ৪,৯৫৬ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ২১ জন

 অন লাইন ডেস্ক থেকে,কবির আহমেদঃ অস্ট্রিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রী রুডল্ফ আনস্কোবার রবিবার সকালে অস্ট্রিয়ার জনপ্রিয় অনলাইন পোর্টাল Oeb24 এর সাথে এক সাক্ষাৎকাররে উপরোক্ত মন্তব্য করেছেন। মন্ত্রী জানান,বর্তমান সমগ্র ইউরোপে করোনার ভাইরাসের দ্বিতীয় প্রাদুর্ভাব খুব দ্রুত বিস্তার লাভ করছে যা আমাদের বিশেষজ্ঞদের সতর্কতার সময়ের চেয়েও অনেক পূর্বে। তিনি একটি পরিসংখ্যান দেখিয়ে বলেন,গত সপ্তাহের শনিবার সংক্রমণের সংখ্যা ছিল ২,২০০ জন,তার পর থেকে ৩,০০০ হাজার থেকে এখন প্রায় ৬,০০০ হাজারের কাছাকাছি এসে গিয়েছে। আমাদের কাছে গত সপ্তাহে সতর্কতা ছিল সংক্রমণের সংখ্যা ডিসেম্বর মাসে প্রতিদিন ৬,০০০ হাজারে পৌঁছাবে। কিন্ত অক্টোবরের শেষ দিনগুলিতেই তার কাছাকাছি এসে গেছে। আমাদেরকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন,যে নভেম্বরের মাঝামাঝির মধ্যে এই সংক্রমণের গতি হ্রাস করতে না পারলে আমাদের হাসপাতালের ধারণ ক্ষমতা নিয়ন্ত্রণের বাহিরে চলে যাবে।

কিন্ডারগার্টেন ও স্কুলগুলি এখনও কেন খোলা আছে এক প্রশ্নের জবাবে আনস্কোবার বলেন, স্কুলগুলি শিশুদের শিক্ষা, যত্ন এবং ভবিষ্যতের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। তাছাড়াও আমাদের বিশেষজ্ঞদের পরিসংখ্যান অনুযায়ী শিশুদের মধ্যে সংক্রমণের ঝুঁকি কিছুটা কম। তবে গতকাল চ্যান্সেলর তার বক্তব্যে বলেছেন,অবস্থার অবনতি হলে কিন্ডারগার্টেন ও প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলিও বন্ধ করা হবে। আগামী মঙ্গলবার থেকে অস্ট্রিয়ায় মাধ্যমিক ও বিশ্ববিদ্যালয় ও বৃত্তিমূলক প্রতিষ্ঠানে পুনরায় অনলাইন শিক্ষার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। সংক্রমণের সংখ্যা আরও বাড়লে অস্ট্রিয়ার স্বাস্থ্য ব্যবস্থা ধসে পড়বে কি? এমন এক প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী রুডল্ফ আনস্কোবার বলেন,স্বাস্থ্য ব্যবস্থা সচল রাখার জন্য আমাদের হাতে এখনও দুইটি ভালো সপ্তাহ হাতে আছে। এই দুই সপ্তাহে আমরা আমাদের সর্বাত্মক চেষ্টা করবো সংক্রমণের বিস্তার কমিয়ে আনতে।

লকডাউনের ফলে অস্ট্রিয়ার সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্থ ক্যাটারিং, রেস্টুরেন্ট সহ ফাস্ট ফুড অর্থাৎ গ্যাস্ট্রোনমি শিল্পের এই বিশাল ক্ষতিপূরণ কিভাবে কাটিয়ে উঠবে এমন এক প্রশ্নের উত্তরে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান,সরকারের করোনার বিশেষ বাজেট থেকে থেকে ঠিক অন্যান্য ইউরোপীয় দেশ সমূহের মতোই অস্ট্রিয়াতেও একইভাবে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।                                                                                                                                                                 

আজ অস্ট্রিয়ার বিভিন্ন রাজ্যের মধ্যে OÖ রাজ্যে সবচেয়ে বেশী করোনায় সংক্রমণ সনাক্ত হয়েছে ১,১৯৮ জন। রাজধানী ভিয়েনায় সংক্রমিত সনাক্ত হয়েছে ৮৭১ জন। অন্যান্য রাজ্যের মধ্যে NÖএ-৭৩৪ জন,Stmkএ-৫২৮জন,Tirolএ-৪৭৪  জন,Vbgএ-৩৯৮ জন,Sbgএ-৩৪৯ জন,Kärnten এ – ২৪৪ জন এবং Burgenland রাজ্যে ১৬০ জন সংক্রমণ সনাক্ত হয়েছেন। অস্ট্রিয়া এই পর্যন্ত করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১ লক্ষ ৯ হাজার ৮৮১ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ১ হাজার ১৩০ জন। করোনার থেকে আরোগ্য লাভ করেছেন ৬৯ হাজার ৩৩৬ জন। বর্তমানে করোনার সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৩৯ হাজার ৪১৫ জন। এর মধ্যে আইসিইউতে আছেন ২৯১ জন এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ১ হাজার ৯৪৮ জন। বাকীরা নিজ নিজ বাসায় আইসোলেশনে আছেন।

 10,243 total views,  1 views today