অস্ট্রিয়ায় করোনার সংক্রমণ কমিয়ে আনতে সকলের সহযোগিতা চেয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী !

স্কুল বন্ধ নিয়ে বিতর্ক অব্যাহত ! আগামীকাল বুধবার ১১ নভেম্বর থেকে সুপারমার্কেট সহ অন্যান্য দোকানপাট শুধুমাত্র সন্ধ্যা ৭ টা পর্যন্ত খোলা  

 অন লাইন ডেস্ক থেকে,কবির আহমেদঃআজ অস্ট্রিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রী এক ভিডিও বার্তায় বলেন, করোনার সংক্রমণের সংখ্যা এইভাবে বাড়তে থাকলে আমাদের নিবিড় পরিচর্যা ইউনিটগুলি (আইসিইউ) বড় সমস্যার মুখোমুখি হবে। আমাদের বিশেষজ্ঞরা

আগামী কয়েকদিন এই সংক্রমণের পরিসংখ্যান পর্যালোচনা করে আরও কঠোর লকডাউনের সিদ্ধান্ত দিতে পারেন। কিন্তু  আমরা সম্মিলিতভাবে চেষ্টা করলে প্রথম প্রাদুর্ভাবের সময়ের মতোই করোনার সংক্রমণের বিস্তার রোধ করতে পারি।                     

এই করোনা যেহেতু ছোঁয়াচে রোগ,একজন থেকে আরেকজনের মধ্যে ছড়ায় তাই সামাজিক যোগাযোগ যত কমিয়ে আনা যাবে সংক্রমণের বিস্তার তত দ্রুত কমে আসবে। সকলের প্রচেষ্টা বা আগ্রহ ছাড়া এই সমস্যা থেকে বেড়িয়ে আসা সম্ভব নয় বলে তিনি  জানান। আমাদের সকলকেই নিজের সুরক্ষা নিজের নিশ্চিত করে চলতে হবে।

এদিকে করোনার সংক্রমণের বিস্তার অব্যাহত বৃদ্ধি পাওয়ায় বর্তমানে কিন্ডারগার্টেন ও প্রাইমারী স্কুল বন্ধের ব্যাপারে দ্বিমত দেখা দিয়েছে অস্ট্রিয়ায়। রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ চাইছেন স্কুল খোলা রাখতে অন্যদিকে সংক্রমণ রোগ বিশেষজ্ঞরা বলছেন যত তাড়াতাড়ি সম্ভব স্কুল বন্ধ করে দেওয়ার জন্য।              এই প্রসঙ্গে আজ অস্ট্রিয়ার Kärnten রাজ্যের গভর্নর পিটার কাইজার বলেন,যতক্ষণ খোলা রাখা সম্ভব হয় ততক্ষণ খোলা থাকুক।                

আজ অস্ট্রিয়ার রাস্ট্রীয় টেলিভিশন ORF সরকারী সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে জানিয়েছেন যে, আগামীকাল থেকে অস্ট্রিয়ায় সুপারমার্কেট সহ অন্যান্য সকল দোকানপাট সন্ধ্যা ৭ টায় বন্ধ করার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে এই সময়সীমা রাত ৮ টা পর্যন্ত ছিল।                 

আজ অস্ট্রিয়ার মধ্যে সবচেয়ে বেশী সংক্রমিত সনাক্ত হয়েছে Oberösterreich রাজ্যে ১,১৮৩ জন,NÖ রাজ্যে ১,০২৭ জন,রাজধানী ভিয়েনায় ৯৫৪ জন,Tirol রাজ্যে ৯৫০ জন,Steiermark রাজ্যে ৭৯৫ জন,Vbg রাজ্যে ৫০৯ জন,Sbg রাজ্যে ৩১০ জন,Ktn.রাজ্যে ২৪২ জন এবং Burgenland রাজ্যে ১৫০ জন সংক্রমিত সনাক্ত হয়েছেন।

অস্ট্রিয়ায় এই পর্যন্ত করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১,৬৪,৮৬৬ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ১,৪৯৯ জন। করোনার থেকে আরোগ্য লাভ করেছেন ৯৮,৬৬৩ জন। বর্তমানে করোনার সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৬৪,৭০৪ জন। এর মধ্যে ক্রিটিক্যাল অবস্থায় আইসিইউতে আছেন ৪৯৫ জন এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ৩,৫৪৯ জন। বাকীরা নিজ নিজ বাসায় আইসোলেশনে আছেন।

 10,308 total views,  1 views today