ইউরোপে জানুয়ারী থেকে করোনার তৃতীয় তরঙ্গের সতর্কতা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বিশেষজ্ঞের !

অস্ট্রিয়ায় করোনার দ্বিতীয় লকডাউনের সময় বাড়ানোর ঈঙ্গিত দিয়েছেন সরকারের উপ প্রধান !

 অন লাইন ডেস্ক থেকে,কবির আহমেদঃ আজ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা “হু” এর একজন বিশেষজ্ঞ David Navarro জেনেভায় সুইজারল্যান্ডের একটি স্থানীয় পত্রিকার সাথে এক সাক্ষাৎকারে ইউরোপে করোনার তৃতীয় প্রাদুর্ভাবের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। তিনি সতর্ক করে বলেন,ইউরোপে বর্তমানে করোনার দ্বিতীয় তরঙ্গের প্রবাহ ডিসেম্বর মাসে কিছুটা স্থিতিশীল হলেও আগামী জানুয়ারী মাস থেকে ইউরোপে করোনার তৃতীয় তরঙ্গ বা প্রাদুর্ভাবের বিস্তার ঘটনার সম্ভাবনা আছে।

গত বসন্তের প্রথম প্রাদুর্ভাবের পর গ্রীষ্মে কিছুটা বিরতিতে ছিল করোনার সংক্রমণ। তারপর শান্ত গ্রীষ্মের পর শরতে শুরু হওয়া করোনার সংক্রমণ বর্তমানে এখন প্রায় সমগ্র ইউরোপেই ব্যাপক আকারে ছড়িয়ে পড়েছে। তবে ইউরোপের অধিকাংশ দেশেই লকডাউন ও কঠোর বিধিনিষেধের কারনে এই সপ্তাহে সংক্রমণ কিছুটা স্থিতিশীল হয়ে এসেছে। তিনি তার বিশ্লেষণে বলেন,”ইউরোপীয় দেশগুলি প্রথম তরঙ্গকে নিয়ন্ত্রণে আনার পরে গ্রীষ্মের মাসগুলিতে প্রয়োজনীয় অবকাঠামো তৈরি করতে ব্যর্থ হয়েছিল।” যার ফলস্বরূপ বর্তমান করোনার দ্বিতীয় তরঙ্গ পুনরায় তাদের উপর চেপে বসেছে। ইউরোপের দেশ সমূহ যদি এই দ্বিতীয় তরঙ্গের সময়ে প্রয়োজনীয় অবকাঠামো তৈরী বা ব্যবস্থা নিতে ব্যর্থ হয় তাহলে ২০২১ সালের শুরুতেই করোনার তৃতীয় তরঙ্গ বা প্রাদুর্ভাবের মুখোমুখি হতে হবে।                             

এদিকে আজ রবিবার অস্ট্রিয়ার রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিভিশন ORF এর সংবাদ বিষয়ক ZIB অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে এক লাইভ সাক্ষাৎকার অস্ট্রিয়ান সরকারের দ্বিতীয় ক্ষমতাধর ব্যক্তি ভাইস চ্যান্সেলর ভার্নার কোগলার এক প্রশ্নের জবাবে বলেন করোনায় ফিক্সড বলে কিছু নেই। উপস্থাপক প্রশ্ন করেছিলেন সরকার কি ৭ ডিসেম্বর থেকে সব খুলে দিচ্ছেন ? ভার্নার কোগলার বলেন,”ফিক্স কিছুই না।” ৭ ডিসেম্বর থেকে সবকিছু খুলে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি এখনও সরকার দিতে পারছে না। সবকিছু নির্ভর করছে করোনার সংক্রমণের বিস্তারের উপর। তবে তিনি বলেন, আমার ব্যক্তিগত ইচ্ছা স্কুলগুলি যেন পুনরায় ৭ ডিসেম্বর খুলে দেওয়া হয়।  

আজ অস্ট্রিয়ায় নতুন করে সংক্রমণ সনাক্ত হয়েছেন ৫,২২৬ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ৬০ জন। আজ অস্ট্রিয়ার বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে সংক্রমণ রোগ বিশেষজ্ঞদের উদ্ধৃতি দিয়ে বলা হয়েছে যে, বর্তমানে অস্ট্রিয়ায় করোনার সংক্রমণের বৃদ্ধির গতি কিছুটা হ্রাস পেয়েছে। আজ রাজধানী ভিয়েনায় করোনায় সংক্রমণ সনাক্ত হয়েছে ৪৮৪ জন। অন্যান্য রাজ্যের মধ্যে OÖ রাজ্যে ৯২৮ জন,NÖ রাজ্যে ৯১৪ জন, Stmk.রাজ্যে ৬৩২ জন,Kärnten রাজ্যে ৫৮৬ জন,Tirol রাজ্যে ৫৭৫ জন, Sbg.রাজ্যে ৪৯৬ জন,Vorarlberg রাজ্যে ৪৪১ জন এবং Burgenland রাজ্যে ১৬৯ জন নতুন করে সংক্রমণ সনাক্ত হয়েছেন।                         

অস্ট্রিয়ায় এই পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২,৪৭,১৮৮।জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ২,৩৮৮ জন। করোনার থেকে এই পর্যন্ত আরোগ্য লাভ করেছেন ১,৯৯,০২৪ জন। বর্তমানে করোনার সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৭৫,৫৪০ জন। এর মধ্যে আইসিইউতে আছেন ৬৮৩ জন এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ৪,৪৫৮ জন। অবশিষ্ট আক্রান্তরা নিজ নিজ বাসায় আইসোলেশনে আছেন।

 10,258 total views,  1 views today