ইইউতে গত এক সপ্তাহে গড়ে করোনায় প্রতিদিনের মৃত্যু তিন হাজার – ইইউ প্রেসিডেন্ট

 অন লাইন ডেস্ক থেকে,কবির আহমেদঃ আজ বুধবার ২৫ নভেম্বর বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে ইউরোপীয় ইউনিয়নের পার্লামেন্টে এক বক্তব্যে ইইউ প্রেসিডেন্ট ভন ডের লেইন একথা জানান। তিনি বলেন, গত এক সপ্তাহে ইউরোপী ইউনিয়নে মানুষের মৃত্যুর প্রধান কারন ছিল করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ। তিনি অবশ্য সাথে সাথে আশার বাণী শুনিয়ে বলেন,ইউরোপীয় ইউনিয়নের নাগরিকরা প্রথম করোনার ভ্যাকসিন বা টিকা পাবে। তিনি উপমা দিয়ে বলেন অন্ধকার সুড়ঙ্গ দিয়ে চলার পর একসময় আলো দেখা যাবেই।

ইইউ প্রেসিডেন্ট আরও জানান, ইইউ কমিশন এখন ৬ টি ভ্যাকসিন সংস্থার সাথে চুক্তি করেছে। তবে বর্তমানে ভ্যাকসিনের চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভ্যাকসিন সংরক্ষণ ও প্রয়োগ। ইইউ কমিশন প্রধান “সদস্য দেশগুলিকে এখনই ভ্যাকসিন প্রয়োগের প্রস্তুতি নিতে অনুরোধ করেছেন।” “আমরা লক্ষ লক্ষ সিরিঞ্জ এবং কোল্ড চেইন, টিকা কেন্দ্র পরিচালনা, প্রশিক্ষণ কর্মী – এবং আরও অনেক কিছু নিয়ে কথা বলছি।”

ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশসমূহকে কয়েক মিলিয়ন ভ্যাকসিন ডোজ দেওয়ার জন্য রসদ নিশ্চিত করতে হবে। ভন ডের লেইন মঙ্গলবার ঘোষণা করেছিলেন যে, মার্কিন ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারক মোদার্নার সাথে ইইউর ১৬০ মিলিয়ন ডোজ দেওয়ার জন্য একটি চুক্তিও স্বাক্ষরিত হয়েছে। আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই তিনটি ভ্যাকসিন প্রতিষ্ঠান ইইউকে করোনার ভ্যাকসিন সরবরাহ করবে। তবে ইইউর মেডিসিনস এজেন্সি (EMA) অবশ্যই এই ভ্যাকসিন সমূহের নিরাপত্তা এবং কার্যকারিতা পরীক্ষা করবে।                                                    

অস্ট্রিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের উদ্ধৃতি দিয়ে জাতীয় সংবাদ মাধ্যমে বলা হয়েছে জনসংখ্যার আনুপাতিক হারে অস্ট্রিয়া প্রথম পর্বে ৪ মিলিয়ন অর্থাৎ ৪০ লক্ষ ভ্যাকসিন পাবে। এই ভ্যাকসিনের মধ্যে অস্ট্রিয়ায় প্রথম পাবে যে সমস্ত মানুষ ক্রিটিক্যাল অবস্থার মধ্যে আছে। তারপর পাবে যাদের বয়স ৭০ এর উপর। তৃতীয় ধাপে পাবে ডাক্তার, নার্স এবং হাসপাতাল ও স্বাস্থ্য বিষয়ক প্রতিষ্ঠানে কর্মরত কর্মকর্তা- কর্মচারীগণ। আর সাধারণ জনগণ পাবে এপ্রিলের পর তবে এক নিউজ পোর্টাল বলেন,সে হিসাবে অস্ট্রিয়ার সাধারণ মানুষের কাছে এই ভ্যাকসিন আগামী জুন মাসের পূর্বে ভ্যাকসিন পাবে বলে মনে হয় না।       

আজ অস্ট্রিয়ায় করোনায় নতুন করে সংক্রমণ সনাক্ত হয়েছেন ৫,৮০২ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ৯০ জন। গত সাত দিনে অস্ট্রিয়ায় গড়ে প্রতিদিনের সংক্রমণ ৫,৫৪৬ জন। আজ রাজধানী ভিয়েনায় সংক্রমণ সনাক্ত হয়েছেন ৮৮৬ জন।                          

অস্ট্রিয়ায় এই পর্যন্ত করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২,৬০,৫১২ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ২,৬৬৭ জন। করোনার থেকে এই পর্যন্ত আরোগ্য লাভ করেছেন ১,৮৯,০৫৯ জন। বর্তমানে করোনার সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৬৮,৭৮৬ জন। এর মধ্যে ক্রিটিক্যাল অবস্থায় আইসিইউতে আছেন ৭০৯ জন এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ৪,৫৭৬ জন। বাকীরা নিজ নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে আছেন। 

 10,257 total views,  1 views today