আগামীকাল সোমবার থেকে অস্ট্রিয়ায় লকডাউনে ব্যাপক শিথিলতা

আজই ভিয়েনার ১ নাম্বার ডিস্ট্রিক্টে মানুষের ঢল !                                                      

 অন লাইন ডেস্ক থেকে,কবির আহমেদঃ সংক্রমণ বিজ্ঞানী ভাইরোলজিস্ট ফ্লোরিয়ান ক্র্যামারের অস্ট্রিয়ায় পুনরায় সংক্রমণ বৃদ্ধির আশঙ্কা! অস্ট্রিয়ার Steiermark রাজ্য জন্মগ্রহণকারী টপ ভাইরোলজিস্ট যিনি বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের মাউন্ট সিনাই হাসপাতালে কর্মরত ফ্লোরিয়ান ক্র্যামার সোমবার থেকে অস্ট্রিয়ায় লকডাউনের ব্যাপক শিথিলতার সিদ্ধান্তে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন।     

তিনি বলেন,আমি একজন ভাইরোলজিস্ট হিসাবে বলছি এতো তাড়াতাড়ি সব কিছু খুলে দেওয়া ঠিক হয় নি। তিনি আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেন সংক্রমণ কমে আসার এই উন্নতি এখন বাধাগ্রস্ত হয়ে পুনরায় সংক্রমণ বিস্তারের বিস্ফোরণ ঘটাতে পারে। তিনি আজ রবিবার অস্ট্রিয়ান জনপ্রিয় রেডিও Ö3 এর সাথে এক সাক্ষাৎকারে উপরোক্ত মন্তব্য করেছেন। তিনি জানান,সংক্রমণ আরও কিছুটা কমে আসলে লকডাউন শিথিলতা করা উচিত ছিল। তিনি কথা প্রসঙ্গে গ্রেট ব্রিটেনের করোনা ভ্যাকসিনের প্রথম জরুরী অনুমোদনের মূল্যায়ন করে বলেন, গ্রেট ব্রিটেনের বায়োনটেক / ফাইজার এমআরএনএ ভ্যাকসিনকে ইতিবাচক হিসাবে আখ্যায়িত করেছেন। “বৈজ্ঞানিক দৃষ্টিকোণ থেকে এটি অত্যন্ত সন্তোষজনক। এই গতিতে কোনও ভ্যাকসিন কখনই বিকাশ ও অনুমোদিত হয়নি। ক্লিনিক্যাল পরীক্ষা অব্যাহত রয়েছে। এই ভ্যাকসিনের ট্রায়াল খুবই সতর্কতার সাথে সম্পন্ন হয়েছে।

তিনি আরও জানান,এই ভ্যাকসিনের সফলতার ব্যাপারে আমি অনেক আশাবাদী কারণ এই ভ্যাকসিন ইতিমধ্যে ৪০,০০০ হাজার মানুষের উপর পরীক্ষা করা হয়েছে এবং পজিটিভ রেজাল্ট পাওয়া গেছে। তবে অবশ্যই আরও সুরক্ষা পর্যবেক্ষণ চালিয়ে যেতে হবে।                                         

অস্ট্রিয়ায় করোনার দ্বিতীয় লকডাউন আজ শেষ দিন। যদিও লকডাউন আগামী ৬ জানুয়ারী পর্যন্ত বর্ধিত করা হয়েছে। আগামীকাল ৭ জানুয়ারী থেকে কিন্ডারগার্টেন, প্রাথমিক বিদ্যালয়( Volksschule) সহ অন্যান্য নিম্ন গ্রেডের স্কুল সমূহ খুলছে। তবে হাইস্কুল সহ সকল উচ্চতর শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে দূরবর্তী শিক্ষা অর্থাৎ অনলাইন ক্লাশ অব্যাহত থাকবে। ব্যবসা-বাণিজ্য সহ অন্যান্য সমস্ত দোকানপাটও আগামীকাল থেকে খুলছে। তবে সবাইকে সামাজিক দূরত্ব যথাযথভাবে মেনে চলার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আগামীকাল থেকে বাহিরে বের হওয়ার নিষেধাজ্ঞা রাত ৮ টা থেকে ভোর ৬ টা পর্যন্ত।  

আজ অস্ট্রিয়ায় করোনায় সংক্রমণ সনাক্ত হয়েছেন ২,৭৪১ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ৮৩ জন। রাজধানী ভিয়েনায় নতুন করে সংক্রমিত সনাক্ত হয়েছেন ৩৬৬ জন। আজ অন্যান্য রাজ্যের মধ্যে NÖ রাজ্যে ৫৫১ জন,OÖ রাজ্যে ৫২৬ জন,Tirol রাজ্যে ৩৬২ জন,Steiermark রাজ্যে ৩৪০ জন, Vorarlberg রাজ্যে ২৩৯ জন, Kärnten রাজ্যে ১৯৮ জন, Salzburg রাজ্যে ১০৩ জন এবং Burgenland রাজ্যে ৫৬ জন নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন।                                 

অস্ট্রিয়ায় এই পর্যন্ত করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩,০৩,৪৩০ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ২,৭৪১ জন। করোনার থেকে আরোগ্য লাভ করেছেন ২,৫২,৭৬৫ জন। বর্তমানে করোনার সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৪৬,৮২৫ জন। এর মধ্যে আইসিইউতে আছেন ৬৩২ জন এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ৩,৮০২ জন। বাকীরা নিজ নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে আছেন।