করোনার সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় রাজধানী ভিয়েনা রাজ্যে আসছে বিধিনিষেধ

অস্ট্রিয়ায় পুনরায় আইসিইউ ও হাসপাতালে করোনার রোগীর সংখ্যা ক্রমশ বাড়ছে

 কবির আহমেদ, ইউরোপ ডেস্কঃ ভিয়েনা রাজ্য প্রশাসন খুব শীঘ্রই খাবারের রেস্টুরেন্টসহ আরও অনেক জায়গায় করোনার প্রতিষেধক টিকা ছাড়া প্রবেশ নিষিদ্ধ করতে যাচ্ছে।

অস্ট্রিয়ার জনপ্রিয় দৈনিক পত্রিকা Kronen Zeitung আজ তাদের বৈকালিক অনলাইন প্রকাশনায় একথা জানিয়েছেন। পত্রিকাটি অবশ্য বলছে ভিয়েনা রাজ্যের নীতিনির্ধারকরা অস্ট্রিয়ার ফেডারেল সরকারের করোনার নতুন দিক নির্দেশনার জন্য আরও কিছুদিন অপেক্ষা করবে। ইতিমধ্যেই ভিয়েনার স্বাস্থ্য বিষয়ক কাউন্সিলর পিটার হ্যাকার(SPÖ) বলেছেন আমাদের হাতে নতুন করোনার সংক্রমণ রোধে জরুরী পদক্ষেপ নেয়ার মাত্র চার থেকে ছয় সপ্তাহ হাতে আছে। যদি এর মধ্যে কোন সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে ব্যর্থ হই তাহলে করোনার নতুন চতুর্থ প্রাদুর্ভাব আমাদের উপর আছড়ে পড়বে। তিনি আরও জানান,করোনার চতুর্থ প্রাদুর্ভাব আমাদের চুতুর্দিকে ঘুরছে এবং আমাদের দুর্বলতার সুযোগ খুঁজছে।

এদিকে অস্ট্রিয়ার অন্যান্য সংবাদ মাধ্যমও জানিয়েছেন যে,ভিয়েনায়, সেপ্টেম্বর থেকে পুরোপুরি টিকা দেওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে রেস্তোরাঁগুলিতে অ্যাক্সেস সীমাবদ্ধ থাকতে পারে। কঠোর করোনা ব্যবস্থা নেওয়ার আগে ভিয়েনার রাজ্য সরকার দেশের কেন্দ্রীয় ফেডারেল সরকারের নতুন বিধিমালার জন্য অপেক্ষা করতে চায়। দায়িত্বপ্রাপ্ত ভিয়েনার স্বাস্থ্য বিষয়ক সিটি কাউন্সিলর পিটার হ্যাকার (SPÖ) মঙ্গলবার বলেছিলেন, আপনি তখন বিশেষজ্ঞদের সাথে কথা বলবেন এবং সম্ভাব্য কঠোর নিয়মগুলি নিয়ে একসঙ্গে সিদ্ধান্ত নেবেন।  হ্যাকার সম্প্রতি দাবি করেছিলেন যে রেস্তোঁরা এবং অবসর সুবিধাগুলি কেবলমাত্র পুরোপুরি টিকা দেওয়া লোকদের জন্য সংরক্ষিত করা উচিত।  রেস্তোরাঁ এবং অবসর সুবিধার জন্য থ্রি-জি নিয়ম সহ “উদ্বোধনী অধ্যাদেশ” বর্তমানে আগস্টের শেষ পর্যন্ত প্রযোজ্য।

থ্রি-জি নিয়মের মধ্যে রয়েছে যারা করোনার টিকা সম্পূর্ণ সম্পন্ন করেছেন,করোনার থেকে পুনরুদ্ধার হয়েছেন এবং করোনার নেগেটিভ পরীক্ষা করেছেন।সমগ্র অস্ট্রিয়াতেই বর্তমানে অনেক জায়গাতেই এই থ্রি জি নিয়ম চলমান রয়েছে। অবশ্য করোনার সংক্রমণের বিস্তার রোধে বেশ কয়েকটি ফেডারেল রাজ্য অন্তত গ্যাস্ট্রনমিতে-যেমন ডিসকোথেক্স (১-জি নিয়ম)-সম্পূর্ণভাবে টিকা দেওয়া মানুষকেই শুধুমাত্র প্রবেশ করার পক্ষে কথা বলেছেন। ভিয়েনা প্রশাসনও রেস্তোঁরাগুলির জন্য একই নিয়ম চায় এবং শিল্প প্রতিষ্ঠানের জন্যও অনুরূপ নিয়মের চিন্তা ভাবনা করা হচ্ছে।

অস্ট্রিয়ার দক্ষিণের রাজ্য Steiermark রাজ্য প্রশাসন করোনার সংক্রমণ বৃদ্ধির ফলে শীঘ্রই কঠোর আঞ্চলিক বিধিনিষেধ আরোপের ব্যাপারে আলাপ আলোচনা করছেন বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম। এই রাজ্যের প্রশাসন রাতের গ্যাস্ট্রোনমিতে  অবসর,বিনোদন এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের জন্য অ্যাক্সেস বিধিনিষেধ কঠোর করার পক্ষে ব্যবস্থার কথা চিন্তা করছেন। এই রাজ্যের সমগ্র গ্যাস্ট্রোনমির জন্য বাধ্যতামূলক ভ্যাকসিনেশন অর্থাৎ করোনার টিকা ব্যতীত কেহ গ্যাস্ট্রোনমি শিল্পে কাজ বা খাবারের জন্য প্রবেশ করতে পারবে না এই সিদ্ধান্ত প্রায় চূড়ান্ত। আজ মঙ্গলবার রাজ্যের গভর্নর হারম্যান শাটজেনহফারের (ÖVP) কার্যালয় থেকে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে একথা বলা হয়েছে।

অস্ট্রিয়ার জাতীয় সংবাদ মাধ্যমের পক্ষ থেকে ভিয়েনার রাজ্যের নতুন এই বিধিনিষেধের ব্যাপারে অস্ট্রিয়ার পর্যটন মন্ত্রী এলিজাবেথ কস্টিংগারের (ÖVP) সাথে যোগাযোগ করে তার মন্তব্য জানতে চাইলে তিনি এই বিষয়ে কোনও মন্তব্য করতে চাননি। কেননা অস্ট্রিয়া বিশেষ করে ভিয়েনা একটি পর্যটন সমৃদ্ধ রাজ্য। পর্যটন মন্ত্রী গত মে মাসে অস্ট্রিয়ার পর্যটন শিল্পকে বাঁচাতে অস্ট্রিয়ায় সকল বিধিনিষেধ সম্পূর্ণ প্রত্যাহারের কথা জানিয়েছিলেন কিন্ত করোনার এই সংক্রমণ বৃদ্ধির ফলে সবকিছুই আবার কেমন যেন উলোটপালট হয়ে যাওয়ার উপক্রম হচ্ছে।

অস্ট্রিয়ায় করোনার সংক্রমণ অস্বাভাবিক বৃদ্ধি সত্ত্বেও বিরোধী রাজনৈতিক দল FPÖ স্পষ্টভাবে সরকারকে করোনার আর কোন বিধিনিষেধ আরোপ করতে নিষেধ করেছেন। অন্যদিকে টিকাদানের বিরোধিতা করে ভিয়েনার একটি আঞ্চলিক দলের নেতা ডমিনিক নেপ “লক-ইন ফ্যান্টাসির” কথা বলেছিলেন এবং বলেছিলেন যে “যারা টিকা দেয় না তাদেরও সামাজিক জীবনে অংশগ্রহণের অধিকার আছে। উল্লেখ্য যে,অস্ট্রিয়ায় পর্যাপ্ত পরিমাণ করোনার প্রতিষেধক টিকা থাকা সত্ত্বেও এখনও অনেক মানুষ টিকা গ্রহণের অনীহা প্রকাশ করছেন। ফলে বর্তমানে অস্ট্রিয়ায় করোনার দৈনিক টিকাদান কার্যক্রম আকস্মিক অস্বাভাবিক হ্রাস পেয়েছে।

একটি সূত্র জানিয়েছেন,অস্ট্রিয়ান ফেডারেল সরকার সম্ভবত টিকাদান কার্যক্রম বৃদ্ধির জন্য আগামী অক্টোবর মাস থেকে দেশে করোনার ফ্রি পরীক্ষা বন্ধ করে দিতে যাচ্ছেন।

আজ অস্ট্রিয়ায় করোনায় নতুন করে আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন ৮৬৬ জন এবং আজ কেহ করোনায় মৃত্যুবরণ করেন নি। রাজধানী ভিয়েনায় আজ নতুন করে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত হয়েছেন ২১২ জন। অন্যান্য রাজ্যের মধ্যে OÖ রাজ্যে ১৫১ জন, NÖ রাজ্যে ১৪২ জন, Steirmark রাজ্যে ১০২ জন, Salzburg রাজ্যে ৯৮ জন, Tirol রাজ্যে ৫৯ জন, Vorarlberg রাজ্যে ৩৮ জন, Kärnten রাজ্যে ৩৩ জন এবং Burgenland রাজ্যে ৩১ জন নতুন করে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত হয়েছেন।

অস্ট্রিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী আজ দেশে করোনার প্রতিষেধক টিকা দেয়া হয়েছে ২০,৫৮৫ ডোজ এবং এই পর্যন্ত টিকাদানের পরিমাণ ১,০১,৮৮,০৮২ ডোজ। অস্ট্রিয়ায় এই পর্যন্ত করোনার প্রতিষেধক টিকার সম্পূর্ণ ডোজ গ্রহণ করেছেন ৫০ লাখ ১৫ হাজার ৭৯৫ জন,যা দেশের মোট জনসংখ্যার শতকরা ৫৬,৩ শতাংশ।

অস্ট্রিয়ায় এই পর্যন্ত করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৬,৭০,৩৭২ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ১০,৭৫৭ জন। করোনার থেকে এই পর্যন্ত আরোগ্য লাভ করেছেন ৬,৫০,৪০৮ জন। বর্তমানে করোনার সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৯,২০৭ জন। এর মধ্যে ক্রিটিক্যাল অবস্থায় আইসিইউতে আছেন ৬১ জন এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ২৭০ জন।বাকীরা নিজ নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে আছেন।

 14,580 total views,  1 views today