যুক্তরাষ্ট্রের বিমানে করে দেশত্যাগী আফগানদের ঠাই এখন আফ্রিকার উগান্ডায়

ওয়াশিংটন পোস্ট জানিয়েছেন কাবুল বিমানবন্দর থেকে সেনা সরিয়ে নিচ্ছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র

 কবির আহমেদ, আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ আফগানিস্তানে তালেবানদের ভয়ে দেশত্যাগী আফগানদের একটি দলকে উগান্ডা পাঠিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। সাময়িকভাবে তাদেরকে সেখানে শরণার্থী হিসেবে রাখা হবে বলে জানিয়েছে উগান্ডা সরকার ও কূটনৈতিক কর্মকর্তারা।

আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম জানিয়েছেন এক বিবৃতিতে আজ উগান্ডার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, ‘আজ সকালে উগান্ডা প্রজাতন্ত্র আফগানিস্তান থেকে আসা ৫১ জনকে গ্রহণ করেছে, যারা বেসরকারি ভাড়া করা বিমানে এনতিব্বি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসেছিল।’

বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র সরকারের অনুরোধে ‘ঝুঁকিতে থাকা’ আফগানদের সাময়িকভাবে উগান্ডা আশ্রয় দিচ্ছে। ১৫ আগস্ট আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুল দখল করে তালেবান। এরপর থেকে দেশটি ছাড়তে মরিয়া হয়ে পড়েছে যুক্তরাষ্ট্র ও ন্যাটো জোটের মিত্রদের সহায়তাকারী আফগানরা।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী থেকে প্রকাশিত ওয়াশিংটন পোস্ট জানিয়েছেন জো বাইডেন প্রশাসন আফগানিস্তানের কাবুল বিমানবন্দর থেকে সেনা সদস্যদের সরিয়ে নিতে কাজ শুরু করেছে। আজ যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা দপ্তর পেন্টাগন এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানায়।

রাজধানী কাবুল তালেবানের নিয়ন্ত্রণে যাওয়ার পর দ্রুত দূতাবাস কর্মীসহ নাগরিকদের দেশে ফেরত আনার প্রক্রিয়া শুরু করে যুক্তরাষ্ট্র। একইসঙ্গে ভয় আর শঙ্কা নিয়ে দেশত্যাগে ইচ্ছুক বহু মানুষ জড়ো হয় বিমানবন্দর এলাকায়। নিজ দেশের লোকজনকে ফেরত নেওয়ার পাশাপাশি দোভাষীদের নিয়েও বিপাকে পড়ে যুক্তরাষ্ট্র। ফলে আরও কয়েক হাজার সেনা সেখানে পাঠায় দেশটি।

এরমাঝে সেখানে গোলাগুলির ঘটনাও ঘটে। এ পর্যন্ত শুধু বিমানবন্দর এলাকায় ২০ জন নিহত হয়েছেন।পেন্টাগনের মুখপাত্র জন কিরবি বলেন, কাবুল বিমানবন্দর থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে সেনা প্রত্যাহারের নির্দেশ এখনও দেওয়া হয়নি। তবে সেখান থেকে কয়েকশ সেনা প্রত্যাহারের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তিনি জানান, এর মধ্যে পেন্টাগনসহ বিভিন্ন দপ্তরের কর্মীরাও রয়েছেন।

ওয়াশিংটন পোস্টের খবরে বলা হয়েছে, ২১ হাজার সাতশ’র মতো মানুষকে কাবুল থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। হোয়াইট হাউসের পক্ষ থেকে জানানো হয়, ১৪ আগস্ট থেকে ৭০ হাজার মানুষকে কাবুল থেকে সরিয়ে নিতে সাহায্য করে যুক্তরাষ্ট্র।

তবে এরমাঝেই তালেবান আবারও হুঁশিয়ারি দেয় যুক্তরাষ্ট্রকে। ৩১ আগস্টের মধ্যে, নির্ধারিত সময়ের আগে সেনাদের সরানোর কথা বলে তারা। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনও আগামী ৩১ আগস্টের মধ্যে কার্যক্রম শেষ করতে চান। তবে এটি নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেন যুক্তরাষ্ট্রের মিত্ররা। লোকজনকে কাবুল বিমানবন্দর থেকে সরিয়ে নেওয়ার সময় বিশৃঙ্খলা ঠেকাতে আশপাশের এলাকা নিয়ন্ত্রণে নেয় তালেবান এবং বিমানবন্দরের ভেতরে অবস্থান করছে মার্কিন সেনারা।

 14,628 total views,  1 views today