অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনায় করোনার কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ

১ অক্টোবর থেকে ভিয়েনায় শুধুমাত্র টিকা দেওয়া এবং করোনা থেকে সুস্থ ব্যক্তিরা রাতের রেস্তোরাঁয় এবং বড় অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করতে পারবেন

 কবির আহমেদ, ইউরোপ ডেস্কঃ অস্ট্রিয়ান সংবাদ মাধ্যম জানিয়েছেন অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনায় করোনার চতুর্থ প্রাদুর্ভাবে সংক্রমণের বিস্তার বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। আজ সকালে রাজ্যের গভর্নর ও  সিটি মেয়র মিখাইল লুডভিগ (SPÖ) রাজ্যের নীতিনির্ধারক ও সংক্রমণ রোগ বিশেষজ্ঞদের সাথে ভিয়েনার সিটি হলে এক জরুরী বৈঠক করেন। বৈঠকে কয়েকজন বিশেষজ্ঞ অনলাইন ভার্চুয়ালে সংযুক্ত ছিলেন। বৈঠকের পর মেয়র মিখাইল লুডভিগ ভিয়েনা সিটি হলে এক সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি ১ অক্টোবর থেকে ভিয়েনা রাজ্যে করোনার এই নতুন বিধিনিষেধের কথা বিস্তারিতভাবে উপস্থাপন করেন। তিনি তার বক্তব্যে

নতুন বিধিনিষেধকে চারটি পয়েন্টে ভাগ করেছেন, নিম্নে তা উল্লেখ করা হল:

➤ রাতের খাবারের রেস্টুরেন্টের জন্য ২-জি নিয়ম: নতুন বিধিনিষেধের ফলে আগামী ১ অক্টোবর থেকে রাতের রেস্টুরেন্টে কেবলমাত্র তারাই প্রবেশ করতে পারবে যাদের করোনার প্রতিষেধক টিকা দেয়া আছে বা যারা করোনার থেকে আরোগ্য লাভ করেছেন। রাতের কর্মীদের জন্য একটি ২.৫ জি নিয়ম বাধ্যতামূলক। অর্থাৎ যারা কাজ করবেন তাদের অবশ্যই করোনার টিকার সম্পূর্ণ ডোজ,করোনার থেকে মুক্তি অথবা করোনার পিসিআর পরীক্ষার সনদ থাকতে হবে। করোনার ২,৫ এর অর্থ হল,করোনার এন্টিজেন পরীক্ষা এখন আর কার্যকর নয়।

➤ বিভিন্ন অনুষ্ঠানে ২-জি নিয়ম বাধ্যতামূলক: নতুন নিয়মে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে ২-জি নিয়ম বাধ্যতামূলক অনুসরণ করতে হবে। অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারীদের অবশ্যই করোনার প্রতিষেধক টিকা নেয়া থাকতে হবে অথবা করোনার থেকে সুস্থতার সনদ (সর্বোচ্চ ৬ মাস) থাকতে হবে। ইন্ডোর ও আইটডোর ইভেন্টে ৫০০ জন বা তার বেশী অতিথি বা দর্শকদের এই ২-জি নিয়ম কঠোরভাবে মেনে চলার নির্দেশ।

➤ সকল কেনাকাটায় এফএফপি২ মাস্ক বাধ্যতামূলক: ভিয়েনায় আগামী ১ অক্টোবর থেকে সকল প্রকার কেনাকাটায় গ্রাহকদের জন্য যে কোন দোকানে FFP2 মাস্ক পড়া বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। তবে দোকানের কর্মীদের জন্য সাধারণ MNS মাস্ক পড়ার অনুমতি আছে।

➤  দিনের রেস্টুরেন্টেও করোনার ২-জি নিয়ম: আগামী ১ অক্টোবর থেকে ভিয়েনার সকল দিনের গ্যাস্ট্রনমিতেও উপরোক্ত ২-জি নিয়ম কঠোরভাবে মেনে চলার নির্দেশনা।

উপরন্তু ভিয়েনার মেয়র মিখাইল লুডভিগ আরও বলেন, একটি পিসিআর পরীক্ষা অবশ্যই সমস্ত এলাকায় করা উচিত যেখানে একটি করোনা পরীক্ষা এখনও বৈধ। অ্যান্টিজেন পরীক্ষাগুলি আর সেখানে বৈধ নয় – উদাহরণস্বরূপ গ্যাস্ট্রোনমিতে। মেয়র মিখাইল লুডভিগ এই নতুন বিধিনিষেধ অক্টোবর মাসের ১ তারিখ থেকে একমাসের জন্য প্রযোজ্য হবে বলে জানান। এই নতুন বিধিনিষেধ ১২ বছর বয়স ও তার উপরের সকলের জন্য প্রযোজ্য।

সাংবাদিক সম্মেলনে ভিয়েনা হেলথ অ্যাসোসিয়েশনের মেডিকেল ডিরেক্টর মাইকেল বাইন্ডার জানান যে, ভিয়েনার  দশটি নিবিড় পরিচর্যার(I.C.U) রোগীর মধ্যে নয়জনকেই আমরা পেয়েছি যারা করোনার প্রতিষেধক টিকাটিকা নেয় নি। তিনি বলেন,করোনার প্রতিষেধক টিকা নেয়ার পরও যারা সংক্রমিত হয়েছেন তাদের অধিকাংশই হালকা,উপসর্গহীন আক্রান্ত হয়েছেন এবং দ্রুত সুস্থতা লাভ করছেন। বাইন্ডার আরও জানান, বর্তমানে ভিয়েনা রাজ্যে করোনার নতুন সংক্রমণ অস্বাভাবিকহারে বৃদ্ধির ফলে  স্বাস্থ্য ব্যবস্থার উপর পুনরায় চাপ বেড়েছে। তিনি সবশেষে বলেন, ভিয়েনার আইসিইউ বেডের স্বল্পতার জন্য পুনরায় সাধারণ অপারেশন স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে।

এদিকে আজ অস্ট্রিয়ায় নতুন করে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত হয়েছেন ১,২৪০ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ২২ জন। রাজধানী ভিয়েনায় আজ নতুন করে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত হয়েছেন ৩৫২ জন।

অন্যান্য রাজ্যের মধ্যে OÖ রাজ্যে ২৯৩ জন,NÖ রাজ্যে ২০৯ জন,Tirol রাজ্যে ১০৪ জন,Steiermark রাজ্যে ৯৯ জন,Salzburg রাজ্যে ৬৭ জন,Vorarlberg রাজ্যে ৫১ জন,Kärnten রাজ্যে ৩৭ জন এবং Burgenland রাজ্যে ২৮ জন নতুন করে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত হয়েছেন।

অস্ট্রিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুসারে আজ দেশে করোনার প্রতিষেধক টিকা দেয়া হয়েছে ১২,১৬৫ ডোজ। এই পর্যন্ত করোনার প্রতিষেধক টিকা দেয়ার মোট পরিমাণ ১,০৭,৩২,৮৩৫ ডোজ। অস্ট্রিয়ায় এই পর্যন্ত করোনার প্রতিষেধক টিকার সম্পূর্ণ ডোজ গ্রহণ করেছেন ৫৩ লাখ ৫৫ হাজার ২২ জন,যা দেশের মোট জনসংখ্যার শতকরা ৬০ শতাংশ।

অস্ট্রিয়ায় এই পর্যন্ত করোনায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৭,২৬,৬৭৪ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ১০,৯১৮ জন।করোনার থেকে আরোগ্য লাভ করেছেন মোট ৬,৯৩,৬০০ জন। বর্তমানে করোনার সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ২২,১৫৬ জন। এর মধ্যে আইসিইউতে আছেন ২১৪ জন এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ৮৯৭ জন। বাকীরা নিজ নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে আছেন।

 14,603 total views,  1 views today