শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৮৬তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে আন্তর্জাতিক ভার্চুয়াল দোয়া ও আলোচনা অনুষ্ঠিত

 কবির আহমেদ, আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ এই আন্তর্জাতিক ভার্চুয়াল সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন দলটি ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ সহ সারা বিশ্বের প্রায় পাঁচ শতাধিক নেতাকর্মী অংশগ্রহণ করেন।

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ রাস্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৮৬তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে যুক্তরাজ্য বিএনপি আজ লন্ডনের ব্রিকল্যান্ড জামে মসজিদে এক খতমে কোরআনের আয়োজন করে।পরবর্তীতে সন্ধ্যায় এক আন্তর্জাতিক ভার্চুয়াল দোয়া ও আলোচনা সভারও আয়োজন করে। উক্ত এই ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন লন্ডন থেকে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। দোয়ার সময় আরও অংশগ্রহণ করেন ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সহধর্মীণী ডা.জোবায়দা রহমান।

এই ভার্চুয়াল দোয়া ও আলোচনায় কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের অংশগ্রহণ করেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী ড. মঈন খান, চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ও পাবনা বিএনপির সভাপতি হাবিবুর রহমান হাবিব, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী,দলটির কেন্দ্রীয় কমিটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মাহিদুর রহমান এবং বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার এম এ সালাম।

এছাড়াও এই বিশাল ভার্চুয়াল সভায় যুক্তরাজ্য বিএনপির অন্যান্য নেতৃবৃন্দের মধ্যে দলটির যুগ্ম সম্পাদক হাসনাত কবির খান রিপন উপস্থিত ছিলেন।

এই বিশাল ভার্চুয়াল দোয়া ও আলোচনা সভার সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন যুক্তরাজ্য বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কয়ছর এম আহমেদ। তবে যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি এম এ মালিক সঞ্চালককে সহায়তা করেন।

এই আন্তর্জাতিক ভার্চুয়াল দোয়া ও আলোচনায় সভায় অস্ট্রিয়া থেকে বিএনপির নেতৃবৃন্দ সহ আরও উপস্থিত ছিলেন অস্ট্রিয়া ও বাংলাদেশ থেকে যৌথভাবে প্রকাশিত অনলাইন পত্রিকা ইউরো বাংলা টাইমস ও ইউরো সমাচার পত্রিকার প্রধান সম্পাদক এবং অল ইউরোপিয়ান বাংলা প্রেসক্লাবের প্রধান উপদেষ্টা মাহবুবুর রহমান এবং পত্রিকা দুইটির আন্তর্জাতিক সংবাদদাতা ও অস্ট্রিয়া প্রতিনিধি কবির আহমেদ।

ভার্চুয়াল দোয়া ও আলোচনা অনুষ্ঠানের শুরুতেই পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন লন্ডনের ব্রিকল্যান্ড জামে মসজিদের ইমাম ও খতিব হাফেজ মাওলানা মোহাম্মদ মতিউল হক।কোরআন তেলাওয়াতের পর যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি এম এ মালিক বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও প্রধান অতিথি তারেক রহমান থেকে দোয়ার অনুষ্ঠানটি পরিচালনার অনুমতি নিয়ে নেন।

পবিত্র সূরা ফাতেহা, তিনবার সূরা ইখলাস এবং দুরুদ শরীফ পাঠ করার পর হুজুর শহীদ রাস্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের রুহের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করেন।তিনি শহীদ জিয়ার বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও দেশের মানুষের জন্য তার অবদানের কথা স্মরণ করে তাকে জান্নাত নসিবের জন্য দোয়া করেন।

তাছাড়াও দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্বস্ত্রীক করোনা থেকে দ্রুত মুক্তির জন্যও দোয়া করেন বিএনপির যে সমস্ত নেতাকর্মী এখনও নিখোঁজ রয়েছেন তাদেরকে সহিসালামতে ফিরিয়ে আসার সৌভাগ্য দান করার জন্য দোয়া করেন।এছাড়াও যারা নিহত হয়েছেন তাদের রুহের মাগফেরাতও কামনা করেন।দোয়ার শেষ পর্যায়ে বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার দ্রুত সুস্থতার জন্য দোয়া করেন।তাছাড়াও শহীদ জিয়ার পরলোকগত ছোট ছেলে কোকো রহমানের রুহের মাগফেরাত কামনা করেও দোয়া করা হয়।

দোয়ার পর আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রথমে বক্তব্য রাখেন বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব।তিনি তার বক্তব্যে শহীদ রাস্ট্রপতি জিয়াউর রহমান যে, একজন সত্যিকারের দেশপ্রেমিক ও জাতীয় নেতা ছিলেন তার প্রকৃত উদাহরণ জনগণ এখনও তাদের প্রাণপ্রিয় নেতার জন্য চোখের পানি ফেলে।তিনি শহীদ জিয়াউর রহমান ও কোকোর রুহের মাগফেরাত কামনা করেন এবং জিয়া পরিবারের সুরক্ষার জন্য মহান আল্লাহতায়ালার রহমত কামনা করেন।

সাবেক মন্ত্রী ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. মঈন খান বলেন,শহীদ রাষ্ট্রপতির দেশের জন্য তার অবদানের কথা বলতে গেলে বলে শেষ করা যাবে না।

তিনি মহান মুক্তিযুদ্ধের পূর্বে ও পরে শহীদ জিয়াউর রহমানের কর্মকাণ্ড সম্পর্কে কিঞ্চিত আলোকপাত করেন। ড.মঈন খান তার স্মৃতিচারণে বলেন, যুক্তরাষ্ট্র থেকে বিশ্বের বিখ্যাত ও অত্যন্ত জনপ্রিয় টাইম ম্যাগাজিন তাদের কভার পেজে শহীদ রাস্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ছবি দিয়ে প্রবন্ধ ছাপায়। ফলে সে সময় তার বিরোধীরা প্রতিবাদ করলে ম্যাগাজিনটির কর্তৃপক্ষ জবাবে জানান, তৃতীয় বিশ্বের রাষ্ট্রপ্রধান ও নেতা হিসাবে তিনি ছিলেন অত্যন্ত একজন সৎ সরকার প্রধান।

দলটির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির আহমেদ রিজভী তার সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বলেন,বর্তমান অবৈধ সরকার বাংলাদেশের অত্যন্ত জনপ্রিয় ও গণমানুষের দল বিএনপির বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা-হামলা ও নানান মিথ্যাচার করেও দলটির সামান্যতম কোন ক্ষতি করতে পারে নি।তিনি বলেন এখনও সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে দেশের জনগণ বিএনপিকেই ভোট দিবে।তাই বর্তমান সরকার মানুষের ভোটের অধিকার হনন করে রাতের নির্বাচনের মাধ্যমে অবৈধ পন্থায় ক্ষমতা দখল করে স্বাধীনতাকামী মানুষের প্রতি অনুগত বাহিনীর মাধ্যমে অত্যাচার,নিপীড়ন ও নির্যাতন চালাচ্ছে।যা এখন আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছেও অত্যন্ত স্পষ্ট।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির ভাষণে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান বলেন, শহীদ রাস্ট্রপতি জিয়াউর রহমান নিজের ও পরিবারের জীবনের হুমকির কথা চিন্তা না করে সেই ২৫ মার্চের কালো রাত্রিতেই চট্টগ্রামে সেনা বিদ্রোহ ঘোষণার মাধ্যমে মহান মুক্তিযুদ্ধের সূচনা করেন। তিনি আরও বলেন শহীদ রাস্ট্রপতি জিয়াউর রহমান ২৬ মার্চ চট্টগ্রামের কালুরঘাট বেতার কেন্দ্র থেকে বাংলাদেশের স্বাধীনতার ঘোষণা যদি না দিত, পরবর্তীতে কেহ না কেহ অবশ্যই দিত। তিনি দাবী করেন অষ্টম ইস্টবেঙ্গল রেজিমেন্টের বিদ্রোহী সেকেন্ড ইন কমান্ড মেজর জিয়াউর রহমানের সেই স্বাধীনতার ঘোষণাকে কেন্দ্র করেই বাংলাদেশে ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবস পালন করা হয়ে থাকে।

তারেক জিয়া তার সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে আরও বলেন, শহীদ সফল রাস্ট্রপতি জিয়াউর রহমান তার অত্যন্ত অল্প সময়ের সরকার প্রধান হিসাবে দেশের অনেক গুরুত্বপূর্ণ কাজ সম্পাদন করে গেছেন। তারমধ্যে অন্যতম দক্ষিণ এশিয়ার রাজনৈতিক স্থিতিশীলতার জন্য আঞ্চলিক সংগঠন সার্ক গঠন। মধ্যপ্রাচ্যে বাংলাদেশী শ্রমিকদের কাজের সুযোগ সৃষ্টি এবং বাংলাদেশের অর্থনীতির অন্যতম চালিকা শক্তি পোষাক শিল্প বা গার্মেন্টসের গোঢ়াপত্তন করা।

তারেক জিয়া বলেন, বাংলাদেশের জনগণ এখন দেশে সত্যিকারের গণতন্ত্রের জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে।তিনি আরও জানান, বর্তমান অবৈধ রাতের ভোটের সরকার যে,একটি স্বৈরাচার তা বর্তমানে আন্তর্জাতিক মহল উপলব্ধি করতে পারছে।তিনি বলেন ইনশাআল্লাহ অবশ্যই বাংলাদেশে গণতন্ত্র ফিরে আসবে।তিনি বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ রাষ্ট্রপতি মরহুম জিয়াউর রহমানের ৮৬তম জন্মদিন উপলক্ষে বিএনপি যুক্তরাজ্যকে এই বিশাল আয়োজনের জন্য ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

সবশেষে যুক্তরাজ্য বিএনপির সংগ্রামী সভাপতি এম এ মালিক ভার্চুয়াল দোয়া ও আলোচনা সভার সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

 14,875 total views,  1 views today