স্বাভাবিক জীবন যাত্রায় ফিরে যাচ্ছে অষ্ট্রিয়া

নিউজ ডেস্কঃ আজ মঙ্গলবার ২৮ এপ্রিল রাজধানী ভিয়েনায় এক প্রেস ব্রিফিংয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, লকডাউনের যে, বিধি- নিষেধ ছিল তা আগামী ১ মে প্রত্যাহার করা হবে। তবে একজন থেকে আরেকজন কমপক্ষে এক মিটার দূরত্ব বজায় রেখে চলতে হবে এবং একসাথে সর্বাধিক দশ জনের বেশী মিলিত হওয়া যাবে না। 

স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরো বলেন “দুর্ভাগ্যক্রমে করোনা এখনও শেষ হয়নি।” কিন্তু বিধিনিষেধ  শিথিলতার সত্যিকারের কারন হলো আমাদের দেশে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ হ্রাস পেয়ে যা বর্তমানে 0.৫৯% এ নেমে এসেছে। এই  সাফল্যের জন্য সত্যিকারের প্রশংসার দাবিদার দেশের জনগণ। আমার   একান্ত ইচ্ছা ছিল জনগণকে লাল গোলাপের শুভেচ্ছা জানানোর কিন্তু “দুর্ভাগ্যবশত আমাদের থেকে করোনা এখনও বিধায় নেয় নি বলে তা পারছি না। আমরা সারাক্ষণ পরিস্থিতির উপর নজর রাখছি”।
সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ২ মে থেকে সমস্থ ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান, সেলুন এবং সব খেলাধুলার জন্য শিথিল করা হবে । ৪ মে থেকে মাধ্যমিক এবং উচ্চ-মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া হবে । ১৫ মে থেকে সব ধরনের খাবারের দোকান এবং মসজিদ,মন্দির এবং গির্জা খুলে দেয়া হবে । ১৮ মে থেকে সব ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং ২৯ মে থেকে সব আবাসিক হোটেল  খুলে দেয়া হবে ।                

এদিকে আজ ২৮ এপ্রিল বিকেল ৫ টার  সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী সাড়া অষ্ট্রিয়ায় করোনায় মাত্র ৮৩ জন নুতন করে আক্রান্ত হয়েছে । এনিয়ে সর্বমোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১৫,৩৫৭ জন । সুস্থ হয়ে বাড়ি  ফিরেছেন ১২,৫৮০ জন। সর্বমোট মৃত্যু বরন  করেছেন ৬৯ জন । হাসপাতালে ভর্তি  আছেন ৬০৮ জন । আইসিইউ তে আছেন ১৪০ জন । করোনা পরীক্ষা  করা  হয়েছে  ,৩৯,৫৭৮ জন । সর্বমোট পজেটিভ   ১৫,৩৫৭ জন।       

 6,130 total views,  1 views today