ভিয়েনা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে কোভিড -১৯ সুরক্ষায় ব্যাপক প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে

 অন লাইন ডেস্ক থেকে, কবির আহমেদঃ ইউরোপীয় বিমান চলাচল সুরক্ষা সংস্থা EASA – এর নির্বাচনে ভিয়েনা বিমানবন্দর কোভিড -১৯ সুরক্ষা ব্যবস্থায় একটি আদর্শ বিমান বন্দর হিসাবে স্বীকৃতি পাবে বলে আশা করছেন ভিয়েনা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর প্রধান জুলিয়ান জগার। সোমবার ভিয়েনা বিমানবন্দরে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা বলেন।  

তিনি আরও জানান EASA এর লক্ষ হলো ইউরোপের প্রতিটি বিমানবন্দরে করোনার সর্ব প্রকার সতর্কতা ব্যবস্থা অবলম্বন নিশ্চিত করা। আমরা EASA এর সাথে সম্প্রতি এই ব্যাপারে একটি অংগিকার নামায় স্বাক্ষর করেছি। তাই আমরা সর্বাত্মক চেষ্টা করবো ইউরোপের শ্রেষ্ঠ নিরাপদ বিমানবন্দরের উপাধি নেওয়ার। তিনি জানান বিমানবন্দরে জীবণু মুক্ত অর্থাৎ করোনা ভাইরাসের কভিট-১৯ এর সংক্রমণ থেকে যাত্রীদের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে আমরা বহুমুখী বিভিন্ন ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি। তারই ধারাবাহিকতায় সমস্ত বিমানবন্দর এলাকায় মাস্ক বাধ্যতামূলক,কমপক্ষে এক মিটারের দূরত্ব নিশ্চিত করা, ফ্লোরে সামাজিক দূরত্বের জন্য চিহ্নিতকরণ করা। চেক-ইন, বোর্ডিং এবং তথ্য কাউন্টারগুলি প্লেক্সিগ্লাস সুরক্ষা দিয়ে সজ্জিত করা এবং পুরো টার্মিনাল এলাকায় অসংখ্য হাত নির্বীজন(হ্যান্ড স্যানিটাইজার) স্ট্যান্ড স্থাপন করা হয়েছে। বিমানবন্দরের পরিবহণ বাসে যাত্রীদের সংখ্যা সীমিত রাখা এবং বাসে পর্যাপ্ত সুরক্ষা দূরত্বও রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।   

তা ছাড়াও সমস্ত আগত যাত্রীকে তাপীয় ইমেজিং ক্যামেরাগুলি দিয়ে দেহের তাপমাত্রা পরিমাপ করার কাজ পুরোপুরি স্বয়ংক্রিয়ভাবে সম্পন্ন করার মেশিন বসানো হয়েছে। লাগেজ বেল্ট এলাকায় যাওয়ার পথেও যাত্রীদের ক্যামেরা সিস্টেমের মধ্য দিয়ে যেতে হবে, সেখানেও স্থাপন করা হয়েছে স্বয়ংক্রিয়ভাবে তাপমাত্রা পরিমাপক যন্ত্র। যদি কোনো যাত্রীর তাপমাত্রা বেশী থাকে তাহলে সাথে সাথেই স্ক্রিনে লাল বাতি জ্বলে উঠবে এবং আমাদের বিমানবন্দরে নিয়োজিত উপস্থিত ডাক্তারগণ তাদের পরীক্ষা করে করোনা সংক্রমণ কিনা নিশ্চিত করবেন।           

এদিকে আজ অস্ট্রিয়ায় ৯ টি প্রদেশের মধ্যে Vienna ও Niederösterreich ছাড়া আর কোথাও নতুন করে সংক্রমিত হয় নি। আজ নতুন করে ২৬ জন সংক্রমিত হয়েছেন। এর মধ্যে রাজধানী ভিয়েনায় ১৮ জন এবং  পার্শ্ববর্তী NÖ এ ৮ জন। ভিয়েনায় আজ ৮৪ বৎসর বয়স্ক একজন ব্যক্তি করোনায় আক্রান্ত হয়ে আইসিইউ তে চিকিত্সাধীন অবস্থায় মৃত্যু বরণ করেছেন। অস্ট্রিয়ায় এই পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১৭,১৩৫ জন এবং মৃত্যু বরণ করেছেন ৬৭৮ জন। করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ১৬,০৬৬ জন।হাসপাতালে ভর্তি আছেন ৭৯ জন । আজ আইসিইউ তে  চিকিত্সাধীন অবস্থায় আছেন ১৫ জন।

 5,815 total views,  1 views today