অস্ট্রিয়ান সরকার প্রধান চ্যান্সেলর সেবাস্তিয়ান কুরজ তার দেশের প্রতিটি নাগরিকের জন্য করোনার ভ্যাকসিন চাইছেন

 অন লাইন থেকে,কবির আহমেদঃ করোনাভাইরাসের টিকা বা ভ্যাকসিন আবিষ্কারের খুব কাছাকাছি চলে এসেছে বিশ্ব। যুক্তরাষ্ট্র, চীন এবং ইউরোপ ইতিমধ্যে করোনার ভাইরাসের বিরুদ্ধে একটি ভ্যাকসিন আবিষ্কারের আপ্রাণ চেষ্টায় আছে। অস্ট্রিয়াও এই চেষ্টায় ইউরোপীয় ইউনিয়নের সাথে সর্বাত্মক সহযোগিতা করে যাচ্ছে। চ্যান্সেলর সেবাস্তিয়ান কুর্জ বলেন প্রতিটি অস্ট্রিয়ানের জন্য একটি ভ্যাকসিন নিশ্চিত করতে স্বাস্থ্যমন্ত্রী রুডল্ফ আনসকোবার ইউরোপীয় ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দের সাথে দেন দরবার করে আসছেন।                                   

যাই হোক না কেন, জার্মানি, ফ্রান্স, ইতালি এবং নেদারল্যান্ডস ইতিমধ্যে ব্রিটিশ-সুইডিশ ফার্মাসিউটিক্যাল সংস্থা অ্যাস্ট্রাজেনেকায় ৪০০ মিলিয়ন লোকের জন্য ভ্যাকসিনের অগ্রিম অর্ডার দিয়ে রেখেছেন। বর্তমানে ইউরোপীয় ইউনিয়নের ভিতর প্রায় ৫০০ মিলিয়ন লোকের বসবাস। অস্ট্রিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয় এই টিকা জোটের বিষয়ে মন্তব্য করে বলেন,”অস্ট্রিয়াসহ সমস্ত ইইউ সদস্য দেশগুলির জন্য অগ্রাধিকার ভিত্তিতে টিকার নিশ্চিত ব্যবস্থা করা হয়েছে।” কুর্জ অবশ্য স্পষ্টতই জার্মানির স্বাস্থ্যমন্ত্রী জেনস স্পাহানের কিছুটা সমালোচনা করে বলেন জার্মানি, ফ্রান্স, ইতালি ও নেদারল্যান্ডসের চার সদস্যের জোট এবং ইইউ ব্যতীত জার্মানি ব্যক্তিগত ভাবে অ্যাস্ট্রাজেনেকা থেকে ক্রয়ের পাশাপাশি জার্মানি এখন আবার বায়োটেক সংস্থা কুরেভ্যাকের ভ্যাকসিন আবিষ্কারের জন্য ৩০০ মিলিয়ন ইউরোর বিনিয়োগ করেছে – এতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রও খুব আগ্রহ দেখিয়েছিল। এই সংস্থাটি বর্তমানে করোনার ভাইরাসের বিরুদ্ধে একটি সক্রিয় ভ্যাকসিন আবিষ্কারের অনুসন্ধান করছে।                    

অবশ্য জার্মানির স্বাস্থ্যমন্ত্রী স্পাহান বলেন, যে বেশ কয়েকটি দেশ ইতোমধ্যে এই সংস্থা থেকে তাদের বিনিয়োগ প্রত্যাহার করে নিয়েছে। জার্মানিও তাদের বিনিয়োগ প্রত্যাহারের চিন্তা ভাবনা করছে। বর্তমানে বিশ্বের জন্য অ্যান্টি-করোনার ভ্যাকসিন আবিষ্কার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ও প্রধান আবেদন হিসাবে বিবেচিত হচ্ছে।

 5,724 total views,  1 views today