অস্ট্রিয়ায় করোনার সংক্রমণ পুনরায় বৃদ্ধি পাওয়ায় পুলিশি তৎপরতা বৃদ্ধি করা হয়েছে

  অন লাইন ডেস্ক থেকে,কবির আহমেদঃ গত শুক্রবার অস্ট্রিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রনালয়ের এক প্রেস নোটে বলা হয়েছিল যে, পশ্চিম বলকান রাষ্ট্র সমূহে করোনা মহামারী ব্যাপকহারে বৃদ্ধি পাওয়ায় রাজধানী ভিয়েনা সহ সারাদেশে পুলিশের নজরদারি বৃদ্ধি করা হবে। এর প্রধান উদ্দেশ্য যে করোনা উপদ্রুত এলাকা থেকে কেহ অস্ট্রিয়া প্রবেশ করে যেন যত্রতত্র ঘোরাঘুরি করতে না পারে।                                

আজ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রনালয়ের এক প্রেস নোটে বলা হয়েছে যে পুলিশ এই পর্যন্ত গত মার্চ মাস থেকে অস্ট্রিয়া জুড়ে সর্বমোট ৫০,৫৪৭ জনকে করোনার প্রাথমিক উপসর্গে (জ্বড়,কাশি ইত্যাদি) কোয়ারেন্টাইনে পাঠিয়েছেন। এর মধ্যে রাজধানী ভিয়েনায় ৪ জন, তিরল প্রদেশে ৩১,৬৫৫ জন,স্টায়ারমারকে ১০,০৪০ জন, কেরন্টেনে ৪,৯৯৯ জন,লোয়ার অস্ট্রিয়ায় ৩,০৩০ জন, বুরগেনল্যান্ডে ৫৭৭ জন,আপার অস্ট্রিয়ায় ২৯ জন,সালজবুর্গে ৮ জন এবং ফোরালবেরগে ৭ জন।                                

প্রেস নোটে আশা করা হয় যে পুলিশ করোনার প্রতিরক্ষামূলক ব্যবস্থাগুলি আরও নিবিড়ভাবে নিয়ন্ত্রণ করবে। পুলিশি তৎপরতা পুনরায় বৃদ্ধির ফলে ভবিষ্যতে মুখ ও নাক রক্ষা এবং দূরত্বের নিয়মগুলি মেনে চলার ক্ষেত্রে জনগণের মধ্যে সচেতনতা বাড়িয়ে তুলবে। এছাড়াও, অনুরোধের ভিত্তিতে পুলিশ অস্ট্রিয়ায় প্রবেশের চেকের পাশাপাশি পশ্চিম বলকান রাষ্ট্র সমূহ থেকে আগতদের নিয়মিত এবং ভ্রমণকারী বাসগুলিতে ফোকাস চেক সহ স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষকে সীমান্তের নিকটবর্তী এলাকায় টহল বৃদ্ধি করে সহযোগিতা করবে।

আজ অস্ট্রিয়ার জার্মানি ও চেক প্রজাতন্ত্র ঘেষা প্রদেশ আপার অস্ট্রিয়ায় এক সরকারী নির্দেশনায় সমস্ত অফিস আদালতে আগামীকাল ৭ জুলাই মংগলবার থেকে পুনরায় মাস্ক পড়া বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। বিভিন্ন সংবাদ সূত্রে অবশ্য বলা হয়েছে যে মাস্ক পড়ার বাধ্যবাধকতা সর্বত্রই জারি হবে।

গত ২৪ ঘন্টায় এই প্রদেশে নতুন করে ৩৯ জন করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন এবং ২ জন মৃত্যু বরণ করেছেন। বর্তমানে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৪০০ ছাড়িয়েছে।                                 

এই দিকে গত ২৪ ঘন্টায় অস্ট্রিয়ায় নতুন করে করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ৮৫ জন। তবে কেহ মৃত্যু বরণ করেন নি। এই পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১৮,৩৬৫ জন এবং মৃত্যু বরণ করেছেন ১৬,৬৪৭ জন। আজ করোনায় সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ১,০১২ তে পৌছিয়াছে। এর মধ্যে আইসিইউ-তে আছেন ১১ জন,হাসপাতালে ভর্তি আছেন ৭৮ জন। বাকী আক্রান্তরা নিজ নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে আছেন।

 6,407 total views,  1 views today