অস্ট্রিয়ায় করোনার দ্বিতীয় প্রাদুর্ভাবের মোকাবেলায় সরকারের ১৭ দফা পরিকল্পনা!

 অন লাইন ডেস্ক থেকে, কবির আহমেদঃ অস্ট্রিয়ায় করোনার দ্বিতীয় তরঙ্গের বিস্তারর রোধে স্বাস্থ্যমন্ত্রী রুডল্ফ আনস্কোবার বুধবার মন্ত্রিপরিষদের এক বিশেষ বৈঠকের পর এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এই ১৭ দফা করোনার কর্মসূচি উপস্থাপন করেছেন। এর মধ্যে রয়েছে ঝুঁকি সচেতনতা জোরদার করা, পরীক্ষার সক্ষমতা বাড়ানো এবং করোনার নিয়মিত আপডেট প্রচার করা, পাশাপাশি আক্রান্তদের দ্রুত সনাক্ত করে পৃথকীকরণ করা এবং ক্লাস্টার বিশ্লেষণে চেক বাড়ানো ইত্যাদি। বর্তমানে সর্ব প্রথম করোনার জন্য একটি কমিশন গঠিন ও করোনার ট্র্যাফিক লাইট প্রবর্তন অর্থাৎ আক্রান্তের প্রকোট হিসাবে লাল,কমলা,হলুদ ও সবুজ অঞ্চল চিন্হিত করার মাধ্যমে আঞ্চলিক পদক্ষেপ গ্রহণ করা।

তিনি আরও জানান করোনার ট্র্যাফিক লাইট এবং কমিশন গঠিত হলে আমরা ট্র্যাফিক লাইটের মাধ্যমে আক্রান্ত এলাকা সমূহকে চারটি বর্ণে খুব স্পষ্ট সূচকের ভিত্তিতে চিন্হিত করে দ্রুত প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে পারবো। তাছাড়াও প্রতিদিনের সংক্রমণ বিশ্লেষণের মাধ্যমে আক্রান্তের সংখ্যা, হাসপাতালের সক্ষমতা, এবং পরীক্ষার সংখ্যা ইত্যাদি আপডেট করা হবে। আগামী আগস্ট মাস থেকে দেশব্যাপী এর ট্রায়াল অপারেশন শুরু হবে এবং সেপ্টেম্বর থেকে এর সম্পূর্ণ প্রয়োগ নিশ্চিত করা হবে। বর্তমানে এর “গাইডলাইন ডেভলপমেন্ট প্রক্রিয়া” চলছে বলে জানান তিনি।                                          

কেন্দ্রীয় ফেডারেল সরকার এবং দেশের সব রাজ্যের প্রতিনিধিদের সমন্বয়ে গঠিত কমিশন ট্র্যাফিক লাইটের অবস্থান চিন্হিত করবে। এই কমিশনে থাকছে ফেডারেল সরকারের প্রধান চ্যান্সেলরের দফতর, স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের অধীনে পাঁচটি ফেডারেল প্রতিনিধি এবং প্রতিটি ফেডারেল রাজ্যের এক করে জন প্রতিনিধি সমন্বয়ে গঠিত। এই কমিশনের আগামী সপ্তাহ থেকে কাজ শুরু করার কথা রয়েছে।      

এদিকে আজ অস্ট্রিয়ান সরকার করোনার জন্য স্বল্প কালীন সময়ের কাজের মেয়াদ আরও ৬ মাস বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন। সরকার এবং দেশের সমস্ত প্রতিষ্ঠানের সাথে আলোচনার ভিত্তিতেই এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে বলে অস্ট্রিয়ান সংবাদ সংস্থা এপিএ জানান। এবং কাজের সময়সীমা ক্ষেত্র বিশেষে ১০% থেকে ৩০% বাড়ানোর অনুমতি দেওয়া হয়েছে। সর্ট ডিউটি আরও ৬ মাস বর্ধিত করার ফলে এখন তা আগামী ১ লা অক্টোবর থেকে ৩১ মার্চ ২০২১ সাল পর্যন্ত বেড়ে গেল।                                               

অস্ট্রিয়ায় আজ নতুন করে করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ১৭৪ জন মানুষ এবং করোনায় আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেছেন ৩ জন। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২০,৮৫০ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ৭১৬ জন। করোনা থেকে আরোগ্য লাভ করেছেন ১৮,৫২৮ জন। বর্তমানে করোনার সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ১,৬০৬ জন। এর মধ্যে আইসিইউতে আছেন ২০ জন এবং হাসপাতালে আছেন ৯৪ জন। বাকীরা নিজ বাসায় আইসোলেশনে আছেন।

 6,965 total views,  1 views today