সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে অষ্ট্রিয়ায় পালিত হল ঈদুল আযহা

নিউজ ডেস্কঃ করোনার দুর্যোগে গোটা বিশ্ব বিপর্যস্ত। মৃত্যুর মিছিলের মধ্য দিয়ে হাঁটছি আমরা। স্বজন হারানো ব্যাথায় কাতরাচ্ছে দুনিয়া। তারপরও অবিরাম চলেছি এই দুর্যোগ মোকাবেলায়। করোনা মহামারী হয়তো একদিন এই মানুষের কাছেই নতি স্বীকার করবে। ততোক্ষণে আমাদের অনেক কিছু হারাতে হবে। করোনার সঙ্গে সঙ্গী হয়েই আগামী দুঃসময় পাড় করবো আমরা। তারপর পৃথিবী থাকবে। থাকবে মানুষের ভালোবাসা। এত মৃত্যু, এত দুঃখ-কষ্ট তারপরও এসেছে ঈদুল আযহা ।আনন্দের ঈদ নিরানন্দে ভরা। তার মধ্যেই আছি আমরা। তবুও ঈদের শুভেচ্ছা সবাইকে।                                           

আজ অস্ট্রিয়ায় যথাযথ মর্যাদায় পবিত্র ঈদ উল আযহা উদযাপিত হচ্ছে। গত রোজার ঈদের চেয়ে এই ঈদে করোনার বিধিনিষেধ কিছুটা শিথিল থাকায় ঈদের নামাযের জামায়াতে অনেক লোকের সমাগম হয়েছে। অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনায় প্রথম ও প্রধান ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে সকাল ৬:৩০ মিনিটে ভিয়েনা ইন্টারন্যাশনাল ইসলামিক সেন্টারের মসজিদে। আবহাওয়া বেশ চমৎকার থাকায় মসজিদের বাহিরেও বিস্তৃত জায়গা নিয়ে মুসল্লিরা যথাযথ দূরত্ব বজায় রেখে নামাজ আদায় করেন। বাংলাদেশ কমিউনিটির ৪ টি মসজিদে ঈদের নামাজ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এর মধ্যে বাংলাদেশ ইসলামিক সেন্টার বায়তুল মোকারম মসজিদ ভিয়েনায় ৩টি জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রতিটি জামাতেই প্রচুর মানুষের সমাগম হয়েছিল। সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখেই সবাই ঈদের নামাজ আদায় করেন । বাংলাদেশ ইসলামিক সেন্টার বায়তুল মোকারম মসজিদে প্রথম জামাতে ইমামতি করেন মসজিদের ইমাম ও খতিব ডঃ ফারুক আল মাদানী । ২য় জামাতে ইমামতি করেন হাফেজ জাহেদ আহমেদ এবং ৩য় জামাতে ইমামতি করেন জসিম উদ্দিন সরকার ।প্রতিটি জামাত শেষে বিশ্ব উম্মার জন্য দোয়া এবং বিশ্ব থেকে করোনার মুক্তি চেয়ে মোনাজাত করা হয় ।তবে করোনা মহামারীর কারনে কেউ পূর্বের  মত কোলাকোলি  করতে পারে নাই ।

 

অস্ট্রিয়ায় কোরবানী করা হয় ৩ দিন। আজ ঈদের দিন, আগামীকাল ও পড়শুদিন কোরবানী করা হবে।  বাংলাদেশ কমিউনিটির লোকজন ভিয়েনা থেকে প্রায় ৭০ কিলোমিটার দূরে যেয়ে পশুর খামারে কোরবানী করবেন। অনেকে আবার হাঙ্গেরী,চেক প্রজাতন্ত্র ও স্লোভেকিয়াতে বিভিন্ন পশুর খামারে ছাগল,ভেড়া বা গরু কোরবানী করবেন।         

 6,673 total views,  1 views today