অস্ট্রিয়ার বিরোধীদল করোনার বাধ্যতামূলক টিকার বিরুদ্ধে! রাশিয়ার ভ্যাকসিন অস্ট্রিয়া গ্রহন করবে না! – স্বাস্থ্যমন্ত্রী!

 অন লাইন ডেস্ক থেকে, কবির আহমেদঃ অস্ট্রিয়ার দুই প্রধান বিরোধীদল বাধ্যতামূলক করোনার টিকা দেওয়ার বিরুদ্ধে মত প্রকাশ করেছেন। SPÖ প্রধান রেন্ডি-ওয়াগনার এবং FPÖ প্রধান নরবার্ট হোফার বলেন অস্ট্রিয়ায় করোনার টিকা সবার জন্য বাধ্যতামূলক করা যাবে না।”প্রত্যেকেরই সিদ্ধান্ত নিতে হবে যে তারা করোনার বিরুদ্ধে টিকা দিতে চায় কিনা।” অর্থাৎ জোর করা যাবে না।                           

অবশ্য রেন্ডি ভাগনার বলেন,বর্তমানে আলোচনাটি সাধারণভাবে অর্থহীন কেননা এই আলোচনাটি কেবল তখনই গুরুত্ব পাবে যদি কোনও ভ্যাকসিন পাওয়া যায় এবং এর প্রভাব এবং পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াগুলি জানা যায়। তবে সাধারণভাবে, এক সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী এবং ডাক্তার হিসাবে “আমি মূলত বাধ্যতামূলক টিকা দেওয়ার পক্ষে নই।”                                         

স্বাস্থ্যমন্ত্রী রুডল্ফ আনসকোবার (গ্রিনস) ইতিমধ্যে সাংবাদিকদের বলেছেন যে অস্ট্রিয়ায় করোনার টিকা বা ভ্যাকসিন আসলে তা সবার জন্য বাধ্যতামূলক করা হবে না। এটা যার যার নিজের ইচ্ছার উপর ছেড়ে দেওয়া হবে। অবশ্য অস্ট্রিয়ার সরকার প্রধান সেবাস্তিয়ান কুর্জ ইউরোপীয় ইউনিয়নের কাছে অস্ট্রিয়ার প্রতিটি নাগরিকের জন্য করোনার টিকা দাবী করেছেন। অস্ট্রিয়ার বিরোধীদল FPÖ প্রধান নরবার্ট হোফার রাশিয়ার সমালোচনা করে বলেন, রাশিয়া করোনার টিকার কার্যকারিতা এবং সম্ভাব্য পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াগুলি পরীক্ষা না করেই অনুমোদন দিয়েছেন। গতকাল রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের করোনার টিকার অনুমোদনের পর অবশ্য বলা হয়েছে আমরা ভ্যাকসিন পুশ করার পর কয়েকদিন আরও দেখবো যে তার কোন প্বার্শ্বর্প্রতিক্রিয়া হয় কিনা।                                         

আজ ভিয়েনায় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে রাশিয়ার ভ্যাকসিন সম্পর্কে স্বাস্থ্যমন্ত্রী রুডল্ফ আনস্কোবার বলেন,এটি একটি অপর্যাপ্ত পরীক্ষিত ভ্যাকসিন। ইইউ এবং অস্ট্রিয়া এর “গুণমান এবং সুরক্ষা” শতভাগ নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত তা কখনই গ্রহণ করবে না। এদিকে আজ অস্ট্রিয়ায় করোনার সংক্রমণ আশঙ্কাজনক বৃদ্ধি পেয়েছে এবং ১ জন চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেছেন। নতুন কর সংক্রমিত হয়েছেন ১৯৪ জন,যার মধ্যে ৯১ জন রাজধানী ভিয়েনায়। বর্তমানে ভিয়েনায় করোনায় আক্রান্ত সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৭৪৭ জন। ২১৬ জন নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে অস্ট্রিয়ার Oberösterreich রাজ্য। এই পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২২,৪৩৯ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ৭২৪ জন। করোনার থেকে আরোগ্য লাভ করেছেন ২০,২৬৮ জন। বর্তমানে করোনার সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ১,৪৪৭ জন। এর মধ্যে আইসিউতে আছেন ২৫ এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ১১৮ জন। বাকীরা নিজ নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে আছেন।

 7,312 total views,  1 views today