অস্ট্রিয়ায় করোনা ভাইরাসের জন্য পুনরায় হোম অফিসের সিদ্ধান্ত !

ঘরোয়া বৈঠকে সরকার প্রধান -চ্যান্সেলর সেবাস্তিয়ান কুর্জ

 অন লাইন ডেস্ক থেকে,কবির আহমেদঃ আজ অস্ট্রিয়ার সরকার প্রধান চ্যান্সেলর সেবাস্তিয়ান কুর্জের নেতৃত্বে চ্যান্সেলর দফতরে মন্ত্রী পরিষদ, করোনা কমিশন ও সমাজের নেতৃস্থানীয় নাগরিকদের এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় দেশের ক্রমবর্ধমান করোনার সংক্রমণ বৃদ্ধিতে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে। সভায় করোনার সংক্রমণ বিস্তার রোধে পুনরায় হোম অফিস প্রবর্তন করার সিদ্ধান্ত সর্বসম্মত ভাবে গৃহীত হয়েছে। সভায় বক্তারা করোনার সংক্রমণ বিস্তার প্রতিরোধে প্রতিরক্ষামূলক ব্যবস্থা মেনে চলতে সরকারকে পূর্বের মত গণসচেতনা বৃদ্ধির জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের অনুরোধ করেন। অনেকেই বলেন যে দেশে পুনরায় লক ডাউন কারো কাম্য নয়।

দ্বিতীয় লকডাউন হতে পারে কিনা জানতে চাইলে সরকার প্রধান চ্যান্সেলর সেবাস্তিয়ান কুর্জ বলেন যে, এটি হাসপাতালের পরিস্থিতির উপর নির্ভর করে। চ্যান্সেলর ব্যাখ্যা করে বলেন যে হাসপাতালে করোনা রোগীর ভর্তির সংখ্যা বর্তমানে খুব বেশি নয়, তবে নতুন করে বেশী সংক্রমণ হলে হাসপাতালে ভর্তির সংখ্যাকে প্রভাবিত করতে সংক্রমণের সংখ্যার জন্য কিছুটা সময় লাগবে। সংক্রমণ বিস্তার লাভ করলে আর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাহিরে চলে যাওয়ার আশঙ্কা সৃষ্টি হলে তখন লক ডাউনের সিদ্ধান্ত নেয়া হতে পারে।

তাঁর বক্তব্য অনুযায়ী, এখনকার পরিস্থিতি প্রথম প্রাদুর্ভাবের চেয়ে অনেকটাই ভালো। পূর্বের তুলনায় আমাদের চিকিৎসকরা এখন ভাইরাসের চিকিৎসার আরও অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন।

সেবাস্তিয়ান আরও জোর দিয়ে বলেন যে,সরকার করোনার সংক্রমণ বিস্তার রোধে ও আক্রান্তদের চিকিৎসার ব্যপারে সর্বাধিক গুরুত্ব দিচ্ছেন। তিনি সকলকে পূর্বের মতোই আবারও সচেতন হওয়ার অনুরোধ করেছেন। তিনি তার বক্তব্য বলেন,বেশিরভাগ সংক্রমণ ব্যক্তিগত আশেপাশে ঘটে, বেশিরভাগ পারিবারিক অনুষ্ঠানে, যেখানে অনেকে বিশ্বাস করেন যে কোনও বিপদ নেই। এর পরে সংক্রমণগুলি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান বা কারখানায় অন্যতমদের মধ্যে বিস্তার লাভকরে।”সুতরাং আপনাদের ব্যক্তিগত,পারিবারিক ও সামাজিক অনুষ্ঠানের ক্ষেত্রে বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। তিনি বিভিন্ন অফিসতে যেখানে লোকেরা একটি আবদ্ধ জায়গায় একসাথে অনেক লোকেরা কাজ করে,তাই সেখানে করোনার সংক্রমণ বিস্তার লাভের সম্ভাবনাও বেশী থেকে যায়। তাই অতীতের অভিজ্ঞতার আলোকে আমরা আবার হোম অফিস শুরু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

আজ অস্ট্রিয়ায় করোনায় নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ৪৬৩ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ২ জন। এই পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩৩,১৫৯ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ৭৫৬ জন। করোনার থেকে আরোগ্য লাভ করেছেন ২৬,৭৬০ জন। বর্তমানে করোনার সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৫,৬৪৩ জন। এর মধ্যে ক্রিটিক্যাল আছেন ৪৪ জন এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ২২৬ জন। অবশিষ্টরা নিজ নিজ বাসায় আইসোলেশনে আছেন।

 

 8,074 total views,  1 views today