চেক প্রজাতন্ত্রে করোনার প্রতিদিনের সংক্রমণ ১,৫০০ থেকে ৩,০০০ পর্যন্ত বৃদ্ধি !

বৃটিশ সরকারের চেক প্রজাতন্ত্র থেকে আগতদের জন্য ১৪ দিনের কোয়ারান্টাইন ঘোষণা

 অন লাইন ডেস্ক থেকে,কবির আহমেদঃ অস্ট্রিয়ার প্রতিবেশী রাষ্ট্র চেক প্রজাতন্ত্রে করোনা ভাইরাসের কোভিড-১৯ এর সংক্রমণ আশঙ্কাজনক বৃদ্ধির ফলে লাল জোন হিসাবে ঘোষণা করা হয়েছে। চেকে বর্তমানে প্রতিদিনের সংক্রমণ ১,৫০০ থেকে ৩,০০০ হাজারের উপরে উঠে এসেছে। এই অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে বৃটিশ সরকার আজ শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ভোর ৪ টা থেকে চেক প্রজাতন্ত্রে তার নাগরিকদের ভ্রমণে সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করেছেন এবং চেক থেকে ফেরতদের জন্য বাধ্যতামূলক ১৪ দিনের কোয়ারান্টাইন ঘোষণা করেছেন।

সংক্রমণ সবচেয়ে বেশী বিস্তৃতি লাভ করেছে রাজধানী প্রাগ। গতকাল শুক্রবার প্রাগের মেয়র জেডেনেক হ্যাব প্রাগকে চেক প্রজাতন্ত্রের করোনার”ট্র্যাফিক লাইট” সিস্টেমে “লাল” ️জোন হিসাবে ঘোষণা দিয়েছেন। লাল রঙটি দেশের সর্বোচ্চ স্তর COVID-19 ঝুঁকির ইঙ্গিত দেয়। চেক রাজধানীর সব বিশ্ববিদ্যালয়ে আগামী সপ্তাহ থেকে অনলাইন শিক্ষাসহ বেশ কয়েকটি প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে সংবাদ মাধ্যমে বলা হয়েছে।

চেক প্রজাতন্ত্রের স্বাস্থ্যমন্ত্রনালয় আশঙ্কা করছে যে নতুন বৎসরের ২০২১ সালের পূর্বেই এখান ৩,৩ মিলিয়ন মানুষ করোনায় সংক্রমিত হবে। অর্থাৎ দেশে প্রতি তিন জনের মধ্যে একজন করোনায় আক্রান্ত হবে। কেননা চেক প্রজাতন্ত্রের বর্তমান মোট জনসংখ্যা প্রায় ১০ মিলিয়ন।

চেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী অ্যাডাম ভোজটেক জনগণকে সতর্ক করে বলেন, আমাদের দেশে করোনা মহামারীর দ্বিতীয় তরঙ্গ ক্রমশ মারাত্মক আকার ধারন করছে। সংক্রমণ রোগ বিশেষজ্ঞরা হুঁশিয়ারি দিয়েছেন যে দেশের এক তৃতীয়াংশ মানুষ সংক্রমিত হবার সম্ভাবনা আছে। তাই তিনি জনগণকে স্বাস্থ্যবিধি ব্যবস্থা পুরোপুরি মেনে চলার জন্য অনুরোধ করেছেন। তিনি আরও জানান, চেক সরকার এখন করোনার ভাইরাসের ঘনিষ্ঠভাবে ছড়িয়ে পড়ার কথা বলছে এবং সামনে কিছু বিধিনিষেধ ঘোষণা করা হতে পারে।আগামী সপ্তাহে মাস্ক পড়ার বাধ্যতামূলক সহ রেস্তোঁরা এবং নাইটক্লাবগুলির খোলার সময়ে সময়সীমা বেধে দেয়া হচ্ছে। তবে সরকার অর্থনৈতিক কারনে গত বসন্তের মতো লকডাউন বা বন্ধের কথা ভাবছেন না। দেশটিতে এই পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৪৬,২৬২ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ৪৯৫ জন।

 

 8,052 total views,  1 views today