ভিয়েনার স্কুলগুলির পরিস্থিতি বিপর্যয়কর-ভিয়েনা শিক্ষক কর্মচারী ইউনিয়ন প্রতিনিধি

 অন লাইন ডেস্ক থেকে,কবির আহমেদঃ ভিয়েনা রাজ্যের বাধ্যতামূলক শিক্ষক-কর্মচারী ইউনিয়নের প্রতিনিধি Thomas Krebs অস্ট্রিয়ার বহুল প্রচারিত দৈনিক Kronen Zeitung পত্রিকার সাথে এক সাক্ষাৎকারে।বলেন বর্তমানে করোনায় ভিয়েনার স্কুলে কোভিড-১৯ এর কারণে চিকিৎসা পরিস্থিতি বিপর্যয়কর হয়ে পড়েছে। শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানে কাহারও করোনার উপসর্গ অনুভব করলে করোনার হট লাইনে (1450) ফোন করলে সারাক্ষণই ওভারলোড পাওয়া যাচ্ছে।

“শিক্ষার্থীদের পৃথক বা সামাজিক দূরত্বে রাখার জন্য আমাদের স্কুল গুলিতে খুব কমই জায়গা আছে। পূর্বে বিধিনিষেধের সময় প্রতিটি ক্লাশ দুই ভাগ করে একদিন পর পর ক্লাশ নেওয়া হয়েছিল। তিনি আরও জানান, করোনা সংক্রমণের এই সময়ে ক্লাশে শিক্ষার্থী বেশী হলে শিক্ষকদের ছাত্রছাত্রীদের অতিরিক্ত যত্ন ও খোঁজ খবর নেওয়া অসম্ভব হয়ে উঠছে।

ভিয়েনার শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানে করোনার সন্দেহজনক রোগীর সংখ্যা বিশাল। অবশ্য সিটি কাউন্সিলর ফর হেলথ পিটার হ্যাকার বলেন,শিক্ষার্থীদের জন্য হটলাইন (1450) কোনও মেডিকেল হটলাইন নয়, তবে শিক্ষা বিভাগের কর্মীদের হট লাইনে ফোন করতে হবে। তবে আরেকটি সমস্যা এখানে সুস্পষ্ট হয়ে ওঠে যে, স্কুলে খুব কম ডাক্তার রয়েছে। আর এই ডাক্তার স্বল্পতা ও শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানে স্বাস্থ্যবিষয়ক সমস্যাগুলি নিয়ে আমাদের পক্ষ থেকে বছরের পর বছর ধরে সতর্ক করা হয়েছিল কিন্তু তেমন একটা কাজ হয় নি।

তবে এই মুহূর্তে থমাস ক্রেবসের ক্ষোভ করা একমাত্র বিষয় নয়: “শিক্ষা অধিদপ্তরে এখন একটি বিরাট প্রশাসনিক সমস্যা রয়েছে। বিকেন্দ্রীভূত প্রশাসনকে শিক্ষা সংস্কার আইন দ্বারা দ্রবীভূত করা হয়েছিল এবং কেন্দ্রীয়ভাবে অনেকগুলি প্রশাসনিক প্রক্রিয়া সংক্ষিপ্ত করতে হয়েছিল। শিক্ষা অধিদপ্তরের এখনও শাখা রয়েছে,তবে এগুলি এখন আরও কম থেকে কমিয়ে আনা হচ্ছে। ফলে দুর্যোগপূর্ণ পূর্ণ অবস্থায় মারাত্মক পরিস্থিতির সৃষ্টি হচ্ছে। বাধ্যতামূলক স্কুল শিক্ষক কর্মচারী প্রতিনিধি টমাস ক্রেবস করোনার কারণে সৃষ্ট সমস্যার জন্য শিক্ষা অধিদপ্তরের নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

অন্যদিকে শিক্ষা অধিদপ্তরের জনৈক মুখপাত্র বলেন, শিক্ষা অধিদপ্তর এটিকে তেমন বড় কোন সমস্যা বলে মনে করছে না। প্রশাসনের কিছুটা সংক্ষিপ্ত করণের ফলে এই করোনার সময়ে কিছুটা বাড়তি চাপ পড়ছে এবং এই ব্যাপারে আমরা অবগত আছি। ভিয়েনায় আমরা ২৭,০০০ শিক্ষককে পরিচালনা করছি। শিক্ষামন্ত্রণালয় ও শিক্ষা অধিদপ্তর সর্বাত্মক চেষ্টা করছে উদ্ভূত পরিস্থিতির একটি দ্রুত সমাধান বের করতে।

 

 8,301 total views,  1 views today