হাউজ ডাক্তারকে করোনা পরীক্ষার অনুমতি দিতে বুধবার অস্ট্রিয়ার পার্লামেন্টে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে !

 অন লাইন ডেস্ক থেকে, কবির আহমেদঃ করোনার ক্রমবর্ধমান বৃদ্ধির ফলে বর্তমান ÖVP ও Green পার্টির কোয়ালিশন সরকার সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছেন যে এখন থেকে করোনার টেস্টের দায়িত্ব হাউজ চিকিৎসকের উপর অর্পণ করা হবে। বর্তমানে অস্ট্রিয়ায় করোনার সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় হট লাইন ও হাসপাতাল হিমশিম খাওয়ায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এর জন্য বুধবার জাতীয় পার্লামেন্টের প্রথম অধিবেশনে এই সম্পর্কে প্রস্তাব উপস্থাপন করা হবে এবং এর জন্য সংসদে সাংবিধানিক সংশোধনীর প্রয়োজন হবে। এই পরীক্ষার ব্যয় ভার অস্ট্রিয়ার ফেডারেল সরকার বহন করবে স্বাস্থ্য বীমা দাতাদের দ্বারা প্রদান করতে হবে।

করোনার সঙ্কটের পরিপ্রেক্ষিতে ফিরোজা-সবুজ জোট আইনটিতে আরও পরিবর্তন আনার পরিকল্পনা করছে: জাতীয় সংসদে বুধবারের প্রথম অধিবেশনে চিকিত্সা পদ্ধতিতে কোভিড -১৯ পরীক্ষার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে, যা স্বাস্থ্য বীমাদাতাদের দ্বারা পরিশোধ করতে হবে (ফেডারেল সরকারের ব্যয়ে)। সরকারের পক্ষ থেকে সংবাদ সংস্থা এপিএ-কে এই ব্যাপারে অবহিত করা হয়েছে। এতে আরও বলা হয়েছে জাতীয় স্বাস্থ্য কমিটি আজ সোমবার পূর্ণাঙ্গ বৈঠকে বসবে সংসদে বুধবার উপস্থাপিত করোনার সম্পর্কিত আইনের পরিবর্তন ও সংযোজনের খসড়া প্রস্তুত করতে। ইতিপূর্বে এই পরিবর্তন জন্য সরকারের সাথে স্বাস্থ্য বিষয়ক বিশেষজ্ঞদের কয়েকদফা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে।

নিবন্ধিত বিধিবদ্ধ স্বাস্থ্য বীমা চিকিত্সক এবং পরীক্ষাগারগুলির সাথে পরীক্ষার জন্য আইন একটি স্বাধীন কমিটির প্রস্তাবের মাধ্যমে প্রবর্তন করা হয়েছে, যা এই সপ্তাহে জাতীয় সংসদের একটি প্রস্তাবকে সমর্থন করে। স্বাস্থ্য বীমা বাহককে এই পরিষেবার জন্য চিকিত্সকদের একটি ফ্ল্যাট ফি দিতে হবে,রোগীদের সহ-অর্থ প্রদান আইন দ্বারা নিষিদ্ধ। ফেডারেল সরকার COVID-19 সংকট ব্যবস্থাপনা তহবিল থেকে এই অর্থ বরাদ্দ দিবে। একই সাথে স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের প্রতিরক্ষামূলক সরঞ্জাম সংগ্রহের অংশটিও পুনর্গঠণ করা হবে। এই সরঞ্জাম অস্ট্রিয়ান স্বাস্থ্য বীমা তহবিল (KGK) বর্তমানে অস্ট্রিয়ায় স্বাস্থ্য সেবায় নিয়োজিত চিকিত্সক ,নার্স থেকে শুরু করে সামাজিক কর্মীদের জন্য ফেডারেল সরকার এর ব্যয়ভার বহন করবে। স্বতন্ত্র পরিষেবা প্রদানকারীদের নির্দিষ্ট প্রয়োজনের মূল্যায়ন এবং বিতরণও সংশ্লিষ্ট পেশাদার এবং আগ্রহী দলগুলির দ্বারা সংগঠিত করা হবে।

এই প্রয়োগের পাশাপাশি, মহামারী, যক্ষ্মা ও কোভিড -১৯ ব্যবস্থা আইনে আরও কিছু পরিবর্তন রয়েছে, এর পরে স্বাস্থ্যমন্ত্রী রুডলফ আনস্কোবার (গ্রিনস) একবার তার সংশোধিত খসড়াটি আগের সপ্তাহে একটি সংক্ষিপ্ত মূল্যায়নের অধীনে রেখেছিলেন এবং কয়েক হাজার জবানবন্দি আবারও পাওয়া গেছে। বুধবার সংসদের আলোচনায় অন্যান্য বিষয়গুলির মধ্যে, করোনার বিধিনিষেধ গুলির বৈধতার মেয়াদ আরও সীমাবদ্ধ করার পরামর্শ দেওয়া হবে।

এদিকে আজ অস্ট্রিয়ায় করোনায় নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ৫৬৩ জন এবং ১ জন মৃত্যুবরণ করেছেন। করোনায় এই পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩৮,৬৫৮ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ৭৬৭ জন। করোনার থেকে আরোগ্য লাভ করেছেন ২৯,৫১৬ জন। বর্তমানে করোনার সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৮,৩৭৫ জন। এর মধ্যে ক্রিটিক্যাল অবস্থায় আছেন ৬৭ জন এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ৩৬৪ জন। বাকীরা নিজ নিজ বাসায় আইসোলেশনে আছেন।

 8,733 total views,  1 views today