অস্ট্রিয়া দ্বিতীয় লকডাউন থেকে বাঁচতে সর্বাত্মক চেষ্টা করছে !

করোনাকালীন কারফিউ অমান্যকারীদের জন্য শূন্য সহনশীলতা নীতির হুমকি দিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী !

 অন লাইন ডেস্ক থেকে,কবির আহমেদঃ আজ অস্ট্রিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রনালয়ের এক প্রেস নোটে বলা হয়েছে পশ্চিম অস্ট্রিয়ার ৩ টি রাজ্যে কারফিউ অমান্য করার জন্য গতকাল প্রথমদিনে ২,২৪০টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের ভাষ্য অনুযায়ী কারফিউ অমান্যকারী ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা €১,৪৫০ ইউরো থেকে €৩০,০০০ ইউরো পর্যন্ত করা হবে। উল্লেখ্য যে,করোনার সংক্রমণ আশঙ্কাজনক বৃদ্ধির ফলে অস্ট্রিয়ার তিনটি রাজ্যে Salzburg,Tirol ও Vorarlberg শুক্রবার ২৫ সেপ্টেম্বর থেকে রাত ১০ টা থেকে সকাল ৬ টা পর্যন্ত কারফিউ জারি করেছে। ফেডারেল রাজধানী ভিয়েনাতেও রাত ১টা থেকে সকাল ৬ টা পর্যন্ত কারফিউ বলবৎ রহিয়াছে।

অস্ট্রিয়ান সংবাদ সংস্থা এপিএ এর খবরে বলা হয়েছে শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কার্ল নেহামার, জাতীয় জননিরাপত্তা বিষয়ক জেনারেল ডিরেক্টর ফ্রাঞ্জ রুফ,বিভিন্ন রাজ্যের পুলিশ পরিচালক এবং রাজ্য পুলিশ ডিরেক্টরদের সাথে ভিয়েনায় এক বৈঠক করেছেন। তারা সকলেই দেশে পুলিশের টহল বৃদ্ধি সহ কারফিউ চলাকালীন সময়ের বিধিনিষেধ আরও কঠোর করার বিষয়ে একমত হয়েছেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর জোর দিয়ে বলেন ফেডারেল পুলিশ করোনা সংক্রমণ বিস্তার রোধে আইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে শূন্য সহনশীলতার নীতি গ্রহণের হুমকি দিয়েছেন।

অন্যদিকে সংবাদ সংস্থা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের উদ্ধৃতি দিয়ে আরও জানায়, আজ প্রতিরক্ষা মন্ত্রী ক্লাউডিয়া ট্যানার করোনা উপদ্রুত রাজ্যগুলিতে কারফিউ সফল করতে পুলিশকে সহযোগিতার জন্য বিপুল সংখ্যক অতিরিক্ত সৈন্য সরবরাহ করেছেন।

আজ অস্ট্রিয়ার সরকার প্রধান চ্যান্সেলর সেবাস্তিয়ান কুর্জ তার ভেরিফাইড ফেসবুকে এক স্ট্যাটাসের মাধ্যমে জনগণের উদ্দেশ্যে বলেন, “করোনার রোগের বৃদ্ধি কেবল অনেকের স্বাস্থ্যকেই বিপন্ন করছে না, অধিকন্তু অস্ট্রিয়ার শ্রম বাজারকে বিপর্যস্ত করে তুলছে। তিনি এক আবেদনে সকলকে একে অন্যের থেকে নিরাপদ দূরত্বে,নাক ও মুখের সুরক্ষা বন্ধনী যেখানে প্রযোজ্য সেখানে পড়ার অনুরোধ করেছেন। তিনি আরও বলেন,আমরা যদি প্রত্যেকে যার যার জায়গা থেকে করোনার বিধিনিষেধ সমূহ যথাযথভাবে মেনে চলি তাহলে আমরা দ্বিতীয় লকডাউনটিকে আটকিয়ে রাখতে পারি।”

আজ অস্ট্রিয়ায় করোনায় নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ৭১৪ জন এবং ১ জন মৃত্যুবরণ করেছেন। এর মধ্যে রাজধানী ভিয়েনাতে সংক্রমিত হয়েছেন ২৯৭ জন এবং ভিয়েনায় বর্তমানে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৪,৩৩১ জন। এই পর্যন্ত অস্ট্রিয়ায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪২,২১৪ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ৭৮৭ জন। করোনার থেকে আরোগ্য লাভ করেছেন ৩৩,১৫৪ জন। বর্তমানে করোনার সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৮,২৭৩ জন। এর মধ্যে ক্রিটিক্যাল অবস্থায় আছেন ৮০ জন এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ৪২৩ জন। বাকীরা নিজ নিজ বাসায় আইসোলেশনে আছেন।

 9,146 total views,  1 views today