অস্ট্রিয়ায় করোনার সংক্রমণ কিছুটা স্থিতিশীল-স্বাস্থ্যমন্ত্রী

 অন লাইন ডেস্ক থেকে, আহমেদঃঅস্ট্রিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রী রুডল্ফ আনস্কোবার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, অস্ট্রিয়ায় বর্তমানে করোনার সংক্রমণ কিছুটা  স্থিতিশীল অবস্থায় রয়েছে। করোনার সর্বশেষ পরিস্থিতি নিয়ে মিডিয়ার সামনে মন্তব্য প্রসঙ্গে তিনি একথা বলেন। স্বাস্থ্যমন্ত্রী আনস্কোবার জানান,গত ৮ ই সেপ্টেম্বর থেকে ১৯ শে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত নতুন করে করোনার সংক্রমণ মারাত্মক বৃদ্ধি পেয়েছিল। তবে গত কয়েক দিনে এই সংক্রমণের গতি কিছুটা স্থিতিশীল অবস্থায় বিরাজ করছে। এর জন্য জনগণের সচেতনতা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে বলে মনে করছেন তিনি। তিনি কিছুটা সন্তুষ্ট চিত্তে বলেন,সম্ভবত সংক্রমণের এই স্থিতিশীল অবস্থা আমাদের করোনার দ্বিতীয় প্রাদুর্ভাবের প্রথম সাফল্য বা পদক্ষেপ হিসাবে ধরে নেয়া যায়।

তিনি জোর দিয়ে বলেন, করোনার বিধিনিষেধ সমূহ যদি কঠোরভাবে মেনে চলা যায় তাহলে করোনার সংক্রমণের সংখ্যা আবার উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস পাবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।”সংক্রমণের সংখ্যা আবার উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস পাবে তা নিশ্চিত করার জন্য আমাদের এখন পরবর্তী কয়েক সপ্তাহে সরকার কর্তৃক আরোপিত বিধিনিষেধ যথাযথ ভাবে মেনে চলতে হবে। আমরা এখন এর জন্য বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ কোর্স তৈরি করেছি।

প্রায় সমস্ত অন্দর অঞ্চলে অর্থাৎ বন্ধ জায়গায় মুখ এবং নাক সুরক্ষার ব্যাপক প্রসারণ থেকে শুরু করে ক্যাটারিং বাণিজ্যে এবং ব্যক্তিগত ইভেন্টগুলিতে সর্বোচ্চ ১০ জনের উপস্থিতি সহ অন্যান্য বিধিনিষেধ প্রয়োগ নিশ্চিত করেছেন। তিনি আত্মবিশ্বাসী যে, জনগণের দ্বারা ধারাবাহিকভাবে আরোপিত বিধিনিষেধ যথাযথভাবে পালন করা হলে আমরা অক্টোবরের প্রথমার্ধ থেকে এই করোনার পদক্ষেপের ইতিবাচক প্রভাবগুলি দেখতে পাব।

এটি এখন তিনটি কেন্দ্রীয় অগ্রাধিকার দ্বারা পরিপূরক হতে হবে: দুর্বল দলগুলির বর্ধিত সুরক্ষা এবং পরীক্ষার এবং যোগাযোগের ব্যক্তিদের পরিচালনার একটি দ্রুত গতি – পাশাপাশি স্থানীয় সম্প্রসারণের বিরুদ্ধে পরিপূরক আঞ্চলিক অতিরিক্ত ব্যবস্থাও রয়েছে। নতুন কোভিড ১৯ টি ব্যবস্থা আইন, যা ইতিমধ্যে কার্যকর, এবং স্বাস্থ্যমন্ত্রনালয়ের সাথে সমন্বয় করতে হবে, এর জন্য সমস্ত ক্ষেত্রে এটি এখন সম্ভব।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী সতর্ক করে বলেন, করোনার নতুন বিধিনিষেধ আমাদের অবশ্যই কঠোরভাবে অনুসরণ করতে হবে নতুবা সামনে আসছে স্বাভাবিক ফ্লু সিজন। নতুন বিধিনিষেধ যথাযথ পালনের মাধ্যমেই ভাইরাসটি আমাদের দেশে নিয়ন্ত্রণের মধ্যে থাকতে পারে।

এদিকে আজ অস্ট্রিয়ায় করোনায় নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন ৬৬২ জন। তবে আজ কেহ মৃত্যুবরণ করেন নি। এই পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪২,৮৭৬ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ৭৮৭ জন। করোনার থেকে আরোগ্য লাভ করেছেন ৩৩,৫৮৯ জন। বর্তমানে করোনার সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৮,৫০০ জন। এর মধ্যে ক্রিটিক্যাল অবস্থায় আইসিইউতে আছেন ৮৪ জন এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছেন ৪৪৬ জন। বাকীরা নিজ নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে আছেন।

 8,744 total views,  1 views today