করোনার জন্য বুধবার থেকে চেক প্রজাতন্ত্রে জরুরী অবস্থা !

State Emmergency in Czech Republic

 অন লাইন ডেস্ক থেকে,কবির আহমেদঃ বুধবার থেকে চেক প্রজাতন্ত্রে জরুরি অবস্থা কার্যকর হতে পারে বলে জানিয়েছেন চেক প্রজাতন্ত্রের টেলিভিশন চ্যানেল নোভা ক্রমবর্ধমান করোনার সংক্রমণ অব্যাহত বৃদ্ধির ফলে পরিস্থিতি অনেকটাই নিয়ন্ত্রণের বাহিরে চলে গেছে। গত সপ্তাহে চেক প্রজাতন্ত্রের স্বাস্থ্যমন্ত্রী পদত্যাগ করেছেন। চেক প্রজাতন্ত্রের প্রধানমন্ত্রী আন্দ্রেজ বাবিস সোমবার সন্ধ্যায় টেলিভিশন চ্যানেল নোভাতে এক সাক্ষাৎকার বলেন,বর্তমান পরিস্থিতিতে দেশে জরুরী অবস্থা ঘোষণা ছাড়া আমাদের আর কোন বিকল্প নাই। তিনি জানান,জরুরী অবস্থা ঘোষণার পূর্বে আগামীকাল বুধবার রাজধানী প্রাগে মন্ত্রী পরিষদের এক বিশেষ বৈঠক ডাকা হয়েছে।

করোনার প্রথম প্রাদুর্ভাবের সময় গত বসন্তে জরুরী অবস্থা দুই মাস স্থায়ী ছিল এবং মে মাসের শেষের দিকে তা তুলে নেয়া হয়েছিল। প্রধানমন্ত্রী বলেন জরুরী অবস্থা ঘোষণার ফলে অন্যান্য বিষয়গুলির মধ্যে এটি সরকারকে সমাবেশের স্বাধীনতার মতো নাগরিক অধিকার স্থগিত করতে সক্ষম করে। আইন অমান্যকারীদের আদালত উচ্চতর জরিমানাও আরোপ করতে পারে। চেক প্রজাতন্ত্রে, আঞ্চলিক নির্বাচন এবং পরিপূরক নির্বাচন শুক্রবার ও শনিবার সংসদীয় উর্ধ্বতন সংসদ সদস্য সিনেটের এক তৃতীয়াংশ নির্বাচনী এলাকাতে অনুষ্ঠিত হবে। সরকার সম্প্রতি একটি স্থগিতাদেশ বাতিল করে দিয়েছিল। ভোট দেওয়ার সময় মুখ এবং নাকের সুরক্ষা ও সামাজিক দূরত্ব যথাযথ মানার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

করোনার দ্বিতীয়বারের প্রাদুর্ভাবে বর্তমানে ইউরোপে স্পেন ও ফ্রান্সের পরেই অস্ট্রিয়ার প্রতিবেশী চেক প্রজাতন্ত্রে সবচেয়ে বেশী মানুষ করোনায় সংক্রমিত হয়েছে। এখানে এই পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৬৫,৮৮৩ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ৬১৮ জন। এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের মেরিল্যান্ড রাজ্যের বাল্টিমোরে অবস্থিত হপকিন্স ইউনিভার্সিটি জানিয়েছে, বিশ্বজুড়ে করোনায় এই পর্যন্ত ১০ লক্ষ ১ হাজার ৮০০ মানুষ মৃত্যুবরণ করেছে। সাড়া বিশ্বে এই পর্যন্ত ৩৩ মিলিয়নেরও বেশী মানুষ করোনার সংক্রমিত হয়েছে।

 

আজ অস্ট্রিয়ায় নতুন করে করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ৬০৯ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ৬ জন। শুধুমাত্র আজ করোনার থেকে সুস্থতা লাভ করেছেন ৮৬৪ জন। রাজধানী ভিয়েনাতে আজ সংক্রমিত হয়েছেন ৩০৮ জন।

অস্ট্রিয়ায় এই পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪৪,০৪১ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ৭৯৬ জন। করোনার থেকে আরোগ্য লাভ করেছেন ৩৪,৯১৬ জন। বর্তমানে করোনার সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৮,৩২৯ জন। এর মধ্যে ক্রিটিক্যাল অবস্থায় আছেন ৯০ জন এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ৪৯১ জন। বাকীরা নিজ নিজ বাসায় আইসোলেশনে আছেন।

 

 8,654 total views,  1 views today