স্লোভাকিয়ায় জরুরী অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে !

 অন লাইন ডেস্ক থেকে,কবির আহমেদঃ আজ বুধবার ৩০ শে সেপ্টেম্বর স্লোভাকিয়ার প্রধানমন্ত্রী ইগোর মাতোভিচ আগামীকাল ১ লা অক্টোবর থেকে ৪৫ দিনের জন্য স্লোভাকিয়ায় জরুরী অবস্থার ঘোষণা দিয়েছেন। তিনি জানান,দেশে ক্রমবর্ধমান নতুন করে করোনার সংক্রমণের প্রবণতা আশঙ্কাজনক বৃদ্ধির ফলে সরকার দেশে জরুরী অবস্থা জারির সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

সরকার প্রধান ইগোর মাতোভিচ তার ভেরিফাইড ফেসবুক একাউন্টেও এক স্ট্যাটাসের মাধ্যমে বলেন, স্লোভাকিয়ানদের একমাত্র জরুরী অবস্থা ঘোষণা ছাড়া নিয়ন্ত্রণ করা অসম্ভব হয়ে পড়েছিল। বারবার সতর্কতা ও বিধিনিষেধ আরোপের পরও সংক্রমণ ক্রমাগত বৃদ্ধি পাওয়ায় উদ্ভূত পরিস্থিতি থেকে উত্তরণের জন্য জরুরী অবস্থা ঘোষণার আর কোন বিকল্প ছিল না। তিনি আরও জানান মন্ত্রী পরিষদের বৈঠকের পর সর্ব সম্মতক্রমে এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে।

স্লোভাকিয়ায় আগস্ট মাসের পর থেকে করোনার দ্বিতীয় তরঙ্গের সংক্রমণ দিন দিন বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। স্লোভাক নিউজ এজেন্সি টিএএসআর জানায়, প্রধানমন্ত্রী ইগোর মাতোভিচ জাতীয় দুর্যোগ সঙ্কট দলের সাথেও দুই দফা জরুরী বৈঠক করেছিলেন। জরুরী আইনের সংশ্লিষ্ট রেজুলেশনে মন্ত্রিপরিষদের সদস্যরা “এমন সকল ব্যবস্থা গ্রহণ করতে মতামত দিয়েছেন যাতে প্রয়োজনে খুব শীঘ্রই জরুরী অবস্থা তুলে নেওয়া সহজ হয়।

করোনার প্রথম প্রাদুর্ভাবের সময় গত মার্চ থেকে ৯০ দিনের জন্যও স্লোভাকিয়ায় জরুরী অবস্থা জারি ছিল।সেই সময়ে, এটি শুধুমাত্র স্বাস্থ্য খাতে প্রয়োগ হয়েছিল। তখনকার জরুরী অবস্থার জন্য স্বাস্থ্যকর্মীদের একত্রিতকরণ এবং স্বাস্থ্য সামগ্রীর দ্রুত অধিগ্রহণ করা দ্রুত ও সহজতর হয়েছিল। স্লোভাক প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন,জরুরী অবস্থা জারির দেশের নাগরিকদের কিছু অধিকার এবং স্বাধীনতা কিছুটা সীমাবদ্ধ করা সম্ভব হবে। উদাহরণস্বরূপ, সমাবেশ এবং আন্দোলনের স্বাধীনতা বা অতি জরুরী প্রয়োজন ছাড়া বাড়ি থেকে বের না হওয়ার নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা যেতে পারে। স্লোভাকিয়ায় আজ নতুন করে করোনয় সংক্রমিত হয়েছেন ৫৬৭ জন এবং ৩ জন মৃত্যুবরণ করেছেন। এই পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১০,১৪১ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ৪৮ জন।

এদিকে আজ অস্ট্রিয়ায় নতুন করে করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ৭৭২ জন এবং ৩ জন মৃত্যুবরণ করেছেন। আজ রাজধানী ভিয়েনায় সংক্রমিত সনাক্ত হয়েছেন ৩২৭ জন। অস্ট্রিয়ায় এই পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪৪,৮১৩ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ৭৯৯ জন। করোনার থেকে আরোগ্য লাভ করেছেন ৩৫,৬৪৪ জন। বর্তমানে করোনার সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৮,৩৭০ জন। এর মধ্যে ক্রিটিক্যাল অবস্থায় আছেন ৯০ জন এবং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ৪৯১ জন। বাকীরা নিজ নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে আছেন।

 8,751 total views,  1 views today