ভোলার, লালমোহন পৌরসভায় রেকর্ড করলেন কাউন্সিলর ঈমাম হোসেন হাওলাদার ।

লালমোহন থেকে নিজস্ব সংবাদাতাঃ মরহুম সৈয়দ হোসেন হাওলাদারের নাতি এবং মরহুম আলী হোসেন হাওলাদারের সন্তান তিনি। মরহুম আলী হোসেন হাওলাদারকে লালমোহন বাসি একজন ভাল ফুটবলার হিসেবেই চিনে।তারই সন্তান একটানা ১৭ বছর কাউন্সিলর থাকার পর আবারো তৃতীয় বারের মতো কাউন্সিলর নির্বাচিত হলেন আলহাজ্ব ঈমাম  হোসেন হাওলাদার । তার মতো এ রেকর্ড  লালমোহন পৌরসভায় আর কেউ করতে পারেনি।

লালমোহন পৌরসভা গঠনের পর ২য় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় ২০০২ সালে। ওই নির্বাচনে আলহাজ্ব ঈমাম হোসেন হাওলাদার ৫নং ওয়ার্ড থেকে প্রথম কাউন্সিলর নির্বাচিত হন। এরপর তৃতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় ২০১০ সালে। ওই নির্বাচনেও তিনি কাউন্সিলর নির্বাচিত হন। মামলা সংক্রান্ত কারণে ২ নির্বাচনেই কেটে যায় একটানা ১৭ বছর। এবার ১৪ অক্টোবর লালমোহন পৌরসভার ৪র্থ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এ নির্বাচনে তৃতীয় বারের মতো বিপুল ভোটে কাউন্সিলর নির্বাচিত হন তিনি। ডালিম প্রতীক নিয়ে ভোট পান ৮০২ ভোট। প্রতিপক্ষ উটপাখি মার্কার প্রার্থী রিয়াজ হাওলাদার পান ৪৮৯ ভোট। ৩১৩ ভোটের ব্যবধানে নির্বাচিত হন,  আলহাজ্ব ঈমাম হোসেন হাওলাদার। ঈমাম হোসেন হাওলাদারের বিজয়ে এলাকার ভোটাররাও ভীষণ খুশি। কারণ তিনি সব সময়  ভোটারদের পাশে থাকেন। তাদের সুখ, দুঃখের সাথীও তিনি। কোন সমস্যা নিয়ে  কেউ আসলে তাদের যথাসম্ভব দ্রুত সমস্যা  সমাধান করার চেষ্টা করেন। আর এ কারণেই তিনি এলাকায় জনপ্রিয় কাউন্সিলর।
আলহাজ্ব ঈমাম হোসেন হাওলাদার এ প্রতিবেদককে বলেন, এলাকার মানুষ ভালোবেসে আমাকে তৃতীয়বার কাউন্সিলর নির্বাচিত করেছে, এজন্য তাদের কাছে আমি কৃতজ্ঞ। আমি জনগণের খেদমত করতে চাই। জনগণ যতদিন চাইবে ততদিন তাদের পাশে থাকবো। বিগত দিনে এলাকার রাস্তাঘাট, ড্রেনের অনেক উন্নয়ন হয়েছে। এবার এলাকার অসমাপ্ত উন্নয়ন কাজ করার  চেষ্টা করবো দ্রুতভাবে। এ ওয়ার্ড থেকে  মাদক চীরতরে  বন্ধ করবো। এলাকাবাসীও এমনটাই প্রত্যাশা করেন এই যুব কাউন্সিলর থেকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.