ইতালী আওয়ামী লীগের আয়োজনে শোকাবহ জেলহত্যা দিবস পালিত ।

মিনহাজ হোসেন, ইতালী প্রতিনিধিঃ জেলহত্যা দিবস  উপলক্ষে যথাযোগ্য মর্যাদা ও ভাবগম্ভীর পরিবেশে দিবসটি পালন করেছে ইতালী আওয়ামী লীগ। বঙ্গবন্ধু এবং তার বিশ্বস্ত চার নেতাকে যারা হত্যা করেছে তারা এখনো সুযোগ খোঁজচ্ছে, আমাদেরকে সর্বদা সর্তক থাকতে হবে। ৩ নভেম্বর শোকাবহ জেলহত্যা দিবস উপলক্ষে ইতালী আওয়ামী লীগের সভায় বক্তরা। ইতালী আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী মোহাম্মদ ইদ্রিস ফরাজীর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক হাসান ইকবালের পরিচালনায় আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার পর দ্বিতীয় কলঙ্কজনক অধ্যায় রচিত হয় এই দিনে। কারাগারে নিরাপদ আশ্রয়ে থাকা অবস্থায় বর্বরোচিত এ ধরনের হত্যাকাণ্ড পৃথিবীর ইতিহাসে বিরল বলেও উল্টেলখ করেন তারা। বক্তারা আরও বলেন, জাতীয় চার নেতার হত্যার মধ্য দিয়ে যেদিন দেশের স্বাধীনতা ও আওয়ামী লীগকে অন্ধকারের দিকে ঠেলে দেয়ার অপচেষ্টা করেছিল। ঐ কালো শক্তি এখনো বিদ্যমান, তাই আমাদেরকে সর্বদা সর্তক থাকতে হবে। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন ইতালী আ’লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক এম কিবরিয়া ও বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার লোকমান হোসেন। এছাড়াও আওয়ামী লীগের সকল অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।                   
এদিকে ইতালি আওয়ামী লীগের আসন্ন কাউন্সিলকে সামনে রেখে ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে নির্বাচন প্রস্তুতি কমিটি। এ উপলক্ষে এক সাংবাদিক সন্মেলনে ইতালী আওয়ামী লীগকে যারা দ্বিধাবিভক্ত করার অপচেষ্টায় লিপ্ত হয়েছে তাদের প্রতি কঠোর হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির নেতারা। রাজধানীর রোমে আয়োজিত এক সাংবাদিক সম্মেলনে প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক জি এম কিবরিয়া ও সদস্য সচিব আবু সাঈদ খান আগামী ২৯ শে মার্চ অনুষ্ঠেয় কাউন্সিলকে সফল করতে দলীয় নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান। এই সাংবাদিক সম্মেলনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম লোকমান হোসেন, প্রস্তুতি কমিটির সদস্য হাজী মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, শাহ আলম, দিদারুল আবেদীন, মজিবর শিকদার সহ আরো অনেকে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাব দেন। ইতালী আওয়ামী লীগের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেন, আবু তাহের, আফতাব ব্যাপারী সহ আরো অনেকেই উপস্থিত ছিলেন। আসন্ন কাউন্সিলে সর্ব ইউরোপীয়ান আওয়ামী লীগের সভাপতি এম নজরুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমানকে বিশেষ অতিথি রেখে বাংলাদেশ আ’লীগের কেন্দ্রীয় কোনো নেতাকে প্রধান অতিথি করার কথাও জানান নেতারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.