বন ও পরিবেশ মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিনের আঞ্চলিক সংবর্ধনা বাতিল ।

স্পেন থেকে,দবির তালুকদার: দ্বিতীয়বারের মতো স্পেনের রাজধানী মাদ্রিদে অনুষ্ঠিত কপ ২৫ সম্মেলন ২০১৯ইং এ বাংলাদেশের ক্ষতিপূরণ ও দাবি-দাওয়া তুলে ধরতে যোগদেন কপ সম্মেলন এর পরবর্তী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ  সরকারের  বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন গত ৯ই ডিসেম্বর রোজ মঙ্গলবার স্পেনের মাদ্রিদে আসেন তিনি ।

মন্ত্রীর সম্মানে মাদ্রিদে স্থানীয় আঞ্চলিক সংগঠন গ্রেটার সিলেট এসোসিয়েশন ইন স্পেন যা সিলেটের চারটি জেলা নিয়ে গঠিত একটি নির্দলীয় সামাজিক সংগঠন এটি তার নিয়মেই একটি গুণীজন সংবর্ধনার আয়োজন করেছে ।শাহজালালের উত্তরসূরিখ্যাত  প্রবাসী সিলেটিরা বৃহত্তর সিলেট জালালাবাদ এসোসিয়েশন নামের এই সংগঠনটিকে রাজনৈতিক প্রভাব মুক্ত রেখে চলেছে আজ অবধি ।

এ সংগঠনটির মাধ্যমে বিগত দিনে সিলেট তথা বাংলাদেশ থেকে আসা গুণী ব্যক্তিদের সম্মান করেছেন দলমতের ঊর্ধ্বে উঠে যা প্রবাসে সুনাম রক্ষাকারী একটি সংগঠন হিসেবে মানুষের কাছে পরিচিত এই বৃহত্তর সিলেটের চারটি জেলা সিলেট সুনামগঞ্জ মৌলভীবাজার হবিগঞ্জ নিয়ে গঠিত বৃহৎ সংগঠনটি ।

সম্পূর্ণ গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় প্রবাসের মাটিতে তার অস্তিত্ব ধরে রেখেছে এই সংগঠন ২০ বছরেরও বেশি সময় ধরে আজ অবধি । গ্রেটার সিলেট জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশন ইন স্পেনের  আহবায়ক ফয়জুর রহমানের সাথে কথা বলে জানা গেছে,  

গ্রেটার সিলেট এসোসিয়েশন এর কার্যকরী পরিষদের মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়েছে গত কিছুদিন আগে، সংগঠনটি নির্বাচন প্রক্রিয়ায় নতুন কার্যকরী পরিষদ গঠনের লক্ষ্যে একটি আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে!

যেহেতু এটি একটি আঞ্চলিক সামাজিক সংগঠন এখানে সকল দল ও মতের মানুষের অংশগ্রহণ থাকাটাই স্বাভাবিক বলে জানিয়েছেন তিনি ।

ফয়জুর রহমান আরও  বলেন আমি নিজেও বিগত দিনে  স্পেন আওয়ামী লীগের ভাইস প্রেসিডেন্টের দায়িত্বে ছিলাম কিন্তু এখানে আমি রাজনৈতিক প্রভাবমুক্ত থাকার চেষ্টা করি কারণ এটি প্রবাসীদের সেবামূলক সংগঠন । এটি দল-মতের ঊর্ধ্বে উঠে মানুষের কল্যাণে কাজ করে, বিগত দিনে এই সংগঠনের  মাধ্যমে বাংলাদেশ দুর্যোগসহ গরীব ও অনাথ অসহায়দের আমরা সবাই ঐক্যবদ্ধ ভাবে সহযোগিতা করে থাকি বিভিন্ন সময়ে । আর্ত মানবতার ডাকে সাড়া দেওয়া সংগঠনটির মূল লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য ।

সিলেট প্রবাসীদের সামাজিক সংগঠনের বর্তমান আহ্বায়ক ফয়জুর রহমান বলেন প্রায় ৫ থেকে ৬ হাজার প্রবাসী  সিলেটবাসীর সুনাম রক্ষাকারী বৃহত্তর সিলেটের সংগঠনটি এবার একজন গুণী মানুষকে সংবর্ধনা দিতে পারেনি বলে দুঃখ প্রকাশ করেন তিনি । তার কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন বন ও পরিবেশ মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন কে ভুল ইনফরমেশন দেয়া হয়েছে ।  তিনি হয়তো জানেন না মূলত এটি একটি প্রবাসী সামাজিক সংগঠন، যাদের ঘাম ঝরানো রেমিটেন্সের   মাধ্যমে বাংলাদেশ সরকারকে সহযোগিতা করে থাকে যে প্রবাসীরা, মূলত তাদের এই সংগঠন এটি ।

মূলত এ সংবর্ধনা ও আলোচনার মাধ্যমে সিলেট জেলার সকল প্রবাসীরা প্রশাসনিক মন্ত্রীর কাছে এলাকার হাইওয়ে ও আঞ্চলিক রাস্তাঘাটের উন্নয়ন নদী ভাঙ্গন ও পরিবেশ দূষণ  সহ  দাবি-দাওয়া ধরে তোলার লক্ষ্য ছিল গ্রেটার সিলেট এসোসিয়েশনের এই আয়োজন । বন ও পরিবেশ মন্ত্রী কে নিয়ে সিলেট প্রবাসীদের লালিত স্বপ্ন আর কথাগুলি বলা হয়ে ওঠেনি । দু`চোখ ভরে মন্ত্রীকে দেখা, কথা বলা বাড়ির ও  এলাকার সকলের খবর নেওয়া, আর মিলনের আনন্দে রাজনৈতিক প্রভাব আর জামাতীদের ষড়যন্ত্রের ফসল বলে জানান সিলেটের এই প্রবীণ নেতা ।

স্পেনের মাদ্রিদে সিলেট প্রবাসীদের সাথে কথা বলে জানা যায় তারা অধীর আগ্রহ নিয়ে অপেক্ষা সময় পার করেছিলেন কেউ কেউ আবার ছুটি নিয়ে রেখেছিলেন কাজের জায়গা থেকে মন্ত্রী আসবেন দেখা করব তাই ।

ভাগ্য উন্নয়নের লক্ষ্য নিয়ে ঘর ছাড়া দেশ হারা পরিবারের জন্য সুখ কুড়ানো মানুষ গুলির নাম হচ্ছে প্রবাসী আর  প্রবাসীদের কোন একটি দিন আর কোন একটি মুহূর্ত হয়ে ওঠে ঈদের আনন্দের মতো ।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে মন্ত্রী আসবেন না এমন সংবাদ পেয়ে গ্রেটার সিলেটের আহবায়ক ফয়জুর রহমান কয়েকজন সদস্য নিয়ে মন্ত্রীর সাথে কথা বলতে হোটেল যান ।

এমদাদুল হক নামের এক ব্যক্তি মন্ত্রীর ভাগ্নে বলে পরিচয় দেন এবং মন্ত্রী মহোদয় কারো সাথে দেখা করতে পারবেন না বলে জানিয়ে দেন তাদের ।

তার বাধা উপেক্ষা করে মন্ত্রীর সাথে কথা বলার অপেক্ষায়  হোটেল লবিতে বসে থাকেন সিলেটের প্রবীণ মুরব্বি ও বর্তমান আহ্বায়ক,

একটু পরে দেখা গেল মাদ্রিদ এর ব্যবসায়ী খ্যাত চাঁদপুরের সন্তান মোহাম্মদ বোরহান উদ্দিন মন্ত্রীর  সংসদীয় আসন কুলাউড়ার ছেলে আলম ও ভাগিনা এমদাদুল হকের সহযোগিতায় মন্ত্রীর হোটেল কক্ষে প্রবেশ করতে ।

ঘন্টা পর হোটেলের রুম ত্যাগ করেন ব্যবসায়ী বুরহানুদ্দিন ও তার সাথে থাকা দুইজন، এসময় মন্ত্রীর  ভাগনা এমদাদুল হকের সাথে কথা বলার চেষ্টা করেন সিলেটের আহ্বায়ক কমিটির সদস্যবৃন্দ একঘন্টা পরে টেলিফোনের জানিয়ে দিব বলে বিদায় দেন সবাইকে এমদাদুল হক নামের এই ব্যক্তি ।

পরে আর কিছুই জানানো হয়নি ।তাছাড়া চট্টগ্রামের মানুষ হোটেল কক্ষে প্রবেশ করতে পারে শুনে আমি সিলেটি অনেককে নিয়ে দাঁড়িয়ে ছিলাম অনেকক্ষণ হোটেল লবিতে ،এটা সিলেটবাসীর জন্য লজ্জার,  জানিয়েছেন বৃহত্তর সিলেট জেলার বর্তমান আহ্বায়ক ফয়জুর রহমান ।

মন্ত্রীর সাক্ষাৎ তাদের কাছে ছিল আনন্দের বলে জানান প্রবাসী অনেকে, সকল আনন্দ মাটি হয়ে গেল যখন শুনলেন মন্ত্রী শাহাব উদ্দিন আসছেন না, মন ভাঙ্গার বেদনা নিয়ে ঘরে ফিরেন সকল সিলেটি প্রবাসীরা । গ্রেটার সিলেট এসোসিয়েশনের দায়িত্বশীল কয়েকজনের সাথে কথা বলে জানা যায়، এই প্রথম কোন গুণী মানুষ ও  মন্ত্রীর সংবর্ধনায় বাধা হয় হয়ে দাঁড়িয়েছেন মন্ত্রীর কিছু আত্মীয় স্বজন ও পাশের মানুষগুলো । তারা বন ও পরিবেশ মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিনের কাছে গ্রেটার সিলেট কে অন্যভাবে উপস্থাপন করেছেন  যা সংগঠনটির সংবিধান ও মূলনীতিতে নাই ।

পরে সাংবাদিকদের অনুসন্ধানী রিপোর্টে বের হয়ে  আসে আত্মীয়দের সাথে মাদ্রিদে কয়েকজন শক্তিশালী জামাত নেতা একটি রেস্টুরেন্টে আনুষ্ঠানিকতায় রাতের খাবারের টেবিলের ছবি,  যা পড়ে সামাজিক গণমাধ্যমে ভাইরাল হয়ে পড়ে ।

মূলত অশুভ মানুষগুলির কারণেই প্রবাসী সিলেটবাসীর  এ সংবর্ধনা বানচাল হয়েছে বলে অনেকের দাবি  ।  

Leave a Reply

Your email address will not be published.