কোয়ারেন্টাইনের পথে স্পেন- বকুল খান

মাদ্রিদ থেকে নিজস্ব প্রতিনিধিঃ স্পেন একটি গোমট ও অস্থির সময় পার করছে ইউরোপ দেশ গুলো বিশেষ করে ইতালি ,স্পেন ফ্রান্স ।  ইতালির পথে ধীরে ধীরে কোয়ারেন্টাইনের পথে মাদ্রিদ তথা স্পেন । আক্রান্তের সংখ্যা  বেড়ে যাওয়ার কারণে ঘরমুখী হয়ে যাচ্ছে স্পেন । চারদিকে ভয় অজানা আশংকা । প্রতিদিন এক দেশ থেকে আরেক দেশে ছড়িয়ে পড়ছে ,সীমানা পেরিয়ে বিস্তার লাভ করেছে প্রায় ৯০ টি দেশে । গত সপ্তাহ থেকে পুরো ইতালি আগামী ২ মার্চ পর্যন্ত  কোয়ারেন্টাইনের  আছে । খুব আতংকিত না হলেও উদ্বেক -উৎকণ্ঠতো বাড়ছেই ।       

এগারো মার্চ থেকে মাদ্রিদ এর স্কুল লেভেল থেকে  কলেজ ,ভার্সিটি সহ সকল বিশ্ব বিদ্যালয় ,শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং বয়স্ক কেন্দ্র বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে আপাতত ২৫ মার্চ পর্যন্ত । আগামী ১৬ মার্চ থেকে বন্ধ হচ্ছে ,কাতালুনিয়ার কলেজ ,বিশ্ববিদ্যালয় । মাদ্রিদে বন্ধ ঘোষণা হয়েছে মিনিসিপালটি অফিস । মঙ্গলবার সকালেই সুপারমার্কেট Marcadona ,Carrefour এর খাদ্য এবং স্যানিটেরিজ সামগ্রী নিমেষেই উধাও হয়ে যায়, আগে ভাবতাম বাংলারই শুধু হুজুগে কিন্তু না যুক্তরাজ্যের মতো স্পেনেও জরুরি সামগ্রী স্টক নিয়ে হুলুস্তুল কান্ডই দেখলাম  । তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় মার্কাডোনার প্রেসিডেন্ট লুইস গ্রিক বলেন ,ক্রেতাদের চাহিদা মেটানোর পর্যাপ্ত সুব্যবস্থা আছে ।

আমাদের বাংলাদেশী অনেকেই হাইজেনিক۔۔ জেল প্রয়োজনের অধিক স্টক করে বুক۔۔ ফুলিয়ে বলছেন ,কিন্তু আপনি۔ জানেন কি আপনার স্বজাতি কিংবা প্রতিবেশী অনিরাপদ রেখে আপনি কখনো নিরাপদ নয় ।অধিক  সামগ্রী এই মুহূর্তে না হলেও স্বাভাবিক আছে সবকিছু । এর সংক্রামণের হাড় বাড়লে অনেকটা ম্লান হয়ে যাবে পযটকদের কাছে জনপ্রিয় দেশ স্পেনের টুরিস্টদের পদচারণা । যদি পর্যটকদের আনাগোনা কমে যাচ্ছে ,বাতিল হচ্ছে হোটেল এবং অবকাশ যাপন বুকিং । উৎসব মুখর জাতি স্পেনিশ রা এখনো মনোবল শক্ত করে বিশ্বাস আছে ۔ করোনা ভাইরাস কে۔ জয় করবে এই সাহস নিয়ে স্বাভাবিক থাকতে চাইছে ।

করোনাভাইরাস কভিড -১৯ স্পেনে নতুন আক্রান্তের সর্বশেষ , ২,২০০ এরও বেশি নিশ্চিত হয়েছে এবং ৫৫ জন মারা গেছে। সংক্রামনের অর্ধেকটি ঘটনা মাদ্রিদের কমিউনিটিতে ই হয়েছে । মাদ্রিদ ছাড়াও পাইস বাস্ক , লা রিওজা এবং কাতালোনিয়া। সমস্ত সম্প্রদায়গুলিতে করোনভাইরাসগুলির কেস রয়েছে। শুধুমাত্র সিউটা এবং۔মেলিলায় স্বায়ত্তশাসিত শহরগুলিতে এখনও ইতিবাচক রোগ নির্ণয় করা যায়নি।মাদ্রিদই ১৫০ জন্য ছিল সপ্তাহ আগে ,জ্যামিতিক হারে বাড়ছে আক্রান্তদের সংখ্যা । স্পেন সরকারের নতুন ۔ প্রেসিডেন্ট পেদ্রো সানজেস ঘোষণা দিয়েছেন এই মহা সংক্রামক মহামারী ঠেকাতে সকল প্রুস্তুতি আছে বলে আশ্বস্থ করেছেন । এখনো ইতালির মতো আতংকিত হয়ে পরিস্তিতি ঘোলাটে হয়নি । ৫ জনের মৃত্যু এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে । যাদের বয়স আশির কাছাকাছি । যাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা  এমনিতেই ছিলনা বেশি । কবিড ১৯ এই ভাইরাসের সিন্ডোম ১৪ দিন অথবা ২১ দিনে পরে স্পষ্ট হওয়ায় কে কখন۔۔ কার দ্বারা সংক্রামিত হবে আগে বোঝার উপায় নেই ।  এটা খুবই  বিপদজনক । ইতিমধ্যে বাংলাদেশি অধ্যুষিত লাভাপিয়েছ লোকাল হাসপাতাল দুজন করোনা ভাইরাস সনাক্ত হয়েছে । স্পেনিশ নাগরিক বলে একটি সূত্র জানায় । শংকিত মানুষ মাস্ক ও হাইজেনিক۔۔ সেনিটাইজিন জেল ,কিনে আগাম সংগ্রহ রাখায় মাদ্রিদ সহ অন্যান্য শহরে তীব্র সঙ্কট দক্ষ দিয়েছে । যদিও পাবলিক প্লেস ,মেট্রো ,বাস অফিস অহরহ কেউ মাস্ক পড়তে দেখা যায়না ,বরং যে, এশিয়াটিক চীন ,জাপান , ফিলিপিন সহ ওই চায়নিজ গড়নের  লোকদের অনেককে পড়তে দেখা যায়,তাদের দিকে অনেকের চাহনি থাকে ,এরাই বুঝি আক্রান্ত । তবে ,হেলথ এক্সপার্ট বারবার সতর্ক বলছেন এই ভাইরাস বাতাসে ছড়ায় না ,ছোঁয়াচে এবং আক্রান্ত মানুষের শ্বাস প্রশ্বাসে সংক্রামিত হয় দ্রুত । তাই প্রথমেই হ্যান্ডশেক থেকে অবশই বিরত এবং বার বার হাইজেনিক জেল কিংবা সাবান দিয়ে জীবাণু মুক্ত থাকে তাগিদ দিয়েছেন চিকিৎসকরা । 

নরমাল সাবান এবং হ্যান্ড ওয়াশ এর উপরে নির্ভর করলেই হবে । সবকিছু পরে সতর্কতা এবং সচেতন থাকাটা এখন জরুরী । যেমন নিজে নিরাপদ থাকবেন অন্যকে নিরাপদ রাখতে পারবেন । তবে ,এক্সপার্টদের  এসেসমেন্ট প্রাথমিক অবস্থায় সনাক্ত করলে ঝুঁকির সম্ভাবনা কম থাকে । ৬০ এর অধিক ,শারীরিকভাবে দুর্বল ব্যক্তিরাই বেশি ঝুঁকির মধ্যে আছেন বলে করোনা ভাইরাস পর্যবেক্ষকদের অভিমত । এ ঘটনায় স্পেন  প্রবাসী বাংলাদেশীদের মধ্যেও উৎকণ্ঠা এবং ভয় কাছ করছে ,তবে এখন পর্যন্ত কোনো বাংলাদেশ সং|ক্রামিত হননি । অনেকে প্যানিক۔۔ ছড়িয়ে আতঙ্ক ছড়াচ্ছেন । পেদ্রো  সানচেজ সরকার খুব সতর্ক ও সাবধানতার সাথে করোনা ভাইরাস কে মোকাবেলা করতে এগোচ্ছে ।

 3,407 total views,  1 views today

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *